Weather

১১ বছরের পুনরাবৃত্তির শরিক হতে চলেছে শহর

দিঘা থেকে আর মাত্র ২৮০ কিমি দূরে রয়েছে এই ঘূর্ণিঝড় বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা

পল্লবী : এর আগে সাল টা ছিল ২০০৯, এক বিধ্বংসীতার শরিক ছিল শহর কলকাতা। আবারো ১১ বছর পর সেই রূপ দেখতে চলেছে শহর। হাজার হাজার গাছ উপরে পড়েছিল রাস্তার মোড়ে। বন্ধ হয়ে গেছিলো সমস্ত যোগাযোগ ব্যবস্থা। চলুন তাহলে দেখা যাক আর কতটা দূরে আছে সে। উড়িশার পারাদ্বীপ থেকে আমপানের অবস্থান এখন ১৫৫ কিলোমিটার দূরে দক্ষিণে। দিঘার দক্ষিণ, দক্ষিণ-পশ্চিম থেকে এর দূরত্ব ২৮০ কিলোমিটার। এবং বাংলাদেশের খেপুপাড়া থেকে ৪২৫ কিলোমিটার দক্ষিণ, দক্ষিণ-পশ্চিমে রয়েছে আমফান ।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রের খবর, ‘সুপার সাইক্লোনিক স্টর্ম’ থেকে আমপান এখন ‘এক্সট্রিমলি সিভিয়র সাইক্লোনিক স্টর্ম’-এ পরিণত হয়েছে। কিছুটা শক্তি হারালেও এখন ‘অতি মারাত্মক’ চেহারা নিয়েই দিঘা থেকে বাংলাদেশের হাতিয়া দ্বীপের মধ্যবর্তী কোনও অঞ্চলে আজ, বুধবার বিকেল অথবা সন্ধ্যার মধ্যে আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আজ, বুধবার সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ এর গতিবেগ হতে পারে ঘণ্টায় ১৬০-১৯০ কিমি । আজ, বুধবার বিকেলের পর দক্ষিণ ২৪ পরগনার উপকূলে আছড়ে পড়বে। দিঘা থেকে আর মাত্র ২৮০ কিমি দূরে রয়েছে এই ঘূর্ণিঝড় বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা ।

আবহবিজ্ঞানীদের অনুমান, সাগরদ্বীপ হয়ে সুন্দরবনকে কেন্দ্র করে আছড়ে পড়তে পারে আমপান। পূর্ব মেদিনীপুর এবং দুই ২৪ পরগনাতেও তা সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলবে। সেই সঙ্গে হবে প্রবল জলোচ্ছ্বাসও। এই তিন জেলার উপকূলে চার থেকে ছ’মিটার পর্যন্ত জলোচ্ছ্বাসের সম্ভাবনা রয়েছে। আমপান আছড়ে পড়ার সময় ঘূর্ণনের গতিবেগ হতে পারে প্রতি ঘণ্টায় ১৫৫ থেকে ১৬৫ কিলোমিটার। এমনকি, এই গতিবেগ বেড়ে তা পৌঁছতে পারে ১৮৫ কিলোমিটারের আশপাশে। আমপানের ঝাপটায় কলকাতা, হুগলি, হাওড়া এবং নদিয়াতেও বেশ ভালই প্রভাব পড়বে। কলকাতায় ঝড়ের গতিবেগ হতে পারে প্রতি ঘণ্টায় ১১০ থেকে ১২০ কিলোমিটার। এমনকি, তা বেড়ে ১৩০ কিলোমিটারও হতে পারে।

ইতিমধ্যেই আমপানের প্রভাব পড়েছে উড়িশার পারাদ্বীপ সংলগ্ন এলাকায়। সেখানে প্রবল ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টি শুরু হয়েছে। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, পারাদ্বীপে প্রতি ঘণ্টায় ৯৬ কিলোমিটার বেগে ঝড় বইছে। ঝোড়ো হাওয়া বইছে ভুবনেশ্বর, চাঁদবলী, বালাসোর, পুরী এবং গোপালপুরেও। বালাসোর এবং ভুবনেশ্বরে ঝড়ের গতিবেগ প্রতি ঘণ্টায় ৪১ কিলোমিটার। অন্য দিকে, চাঁদবলীতে তা প্রতি ঘণ্টায় ৬৫ কিলোমিটারে পৌঁছেছে। পুরী এবং গোপালপুরে ঝড়ের গতিবেগ যথাক্রমে প্রতি ঘণ্টায় ৩৯ এবং ৩০ কিলোমিটার। তাই আবারো সতর্ক বার্তা সরকার পক্ষ থেকে।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: