West Bengal

দিনের পর দিন বাবার পচা মৃতদেহ আগলে, ভারসাম্যহীন ছোট ছেলে।

মনে করিয়ে দিল রবিনসন স্ট্রিটের স্মৃতি, বেহালাতেও ধরা পড়ল একই দৃশ্য।

@ দেবশ্রী : আবারও রবিনসন স্ট্রিটের ছায়া এসে পড়ল বেহালার পর্ণশ্রী এলাকায়। মৃত বাবার পচাগলা দেহ পাঁচদিন ধরে আগলে রইল ছেলে। এই ঘটনাতে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পরে গোটা এলাকায়। বছর পঁচাশির রবীন্দ্রনাথ ঘোষ দীর্ঘদিন ধরে আক্রান্ত ছিলেন যক্ষায়। গত রবিবার তিনি নিঃশাস ত্যাগ করেন। তাঁর সাথে থাকতেন, তাঁর ছোট ছেলে অজিত ঘোষ। বড় ছেলে আদি বাড়ি থেকে থাকতেন খানিক দূরে। সপ্তাহে মাত্র একবার করে আসতেন বাবার সাথে দেখা করার জন্য। তবে বৃহস্পতিবার বাড়িতে ঢোকার সময়েই একটা পচা গন্ধ পান মৃতের বড় ছেলে। ঘরে প্রবেশ করে দেখেন, মাটিতে পড়ে রয়েছে বাবার পচাগলা দেহ।

এমনটা দেখার সাথে সাথেই তিনি পর্ণশ্রী থানায় খবর দেন। পুলিশ এসেও গোটা বিষয়টি দেখে চমকে যায়। বর্তমানে দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্যে পাঠানো হয়েছে। ইতিমধ্যেই এই ঘটনার তদন্ত শুরু করে দিয়েছে পর্ণশ্রী থানার পুলিশ।

সূত্রের মাধ্যমে জানা যায়, বড় ছেলে যখন বাড়িতে যান তখন অজিত ছিলেন না। তখন তিনি দোকানে গেছিলেন। পুলিশ জানিয়েছে, অজিত মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন। কোনোরকম কাজকর্ম করেন না। বাবার সঙ্গেই থাকতেন তিনি। কলকাতা পুলিশের একজন সিনিয়র আধিকারিক জানান, মৃত রবীন্দ্রনাথ ঘোষের বড় ছেলে অশোক কুমার ঘোষের কাছ থেকে তারা ফোন পেয়েছিল। তিনি বলেন, “মৃতদেহ দেখে মনে হয়েছে দিন পাঁচেক আগে বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছিল। ছোটো ছেলে তাঁর বড় ভাইকে বিষয়টি জানাননি। তখন থেকেই তিনি মৃতদেহ নিয়ে বাস করছিলেন।

” তিনি আরও বলেন, “অজিত খুব হতাশাগ্রস্ত ছিলেন। মনে হয় বাবার মৃত্যুর কারণে তিনি আরও ভেঙে পড়েছিলেন। তাই বাবার মৃতদেহ নিয়ে থাকতে শুরু করেন। বড় ভাইকেও জানাননি।” পুলিশ অজিতকে আটক করেছে এবং গোটা বিষয়টি নিয়ে তাঁর সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হচ্ছে। পুলিশ আধিকারিক আরও জানান, একজন মনোবিজ্ঞানীর পরামর্শ নিতে পারেন তাঁরা।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: