Culture

চলছে পুজোর জোর কদমে প্রস্তুতি, দৌড়ে এগিয়ে অজেয় সংহতি

প্রবেশপথে থাকছে sanitising টানেল! আর কি নতুন চমক থাকছে এই বছর?

মধুরিমা সেনগুপ্ত : আকাশে পেজা তুলোর মতো মেঘ মানেই শরৎকাল, আর শরৎকাল মানেই দুর্গাপুজো। এই পুজোর আনন্দেই মেতে উঠেছে ৮ থেকে ৮০ সব মানুষ।বিভিন্ন বড়ো বড়ো ক্লাব শুরু করে দিয়েছে তারই প্রস্তুতি। আর কলকাতার পুজোর মানচিত্রে বড়ো বড়ো নাম বলতেই যে পুজোগুলোর নাম উঠে আসে তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে হরিদেবপুর অজেয় সংহতি ক্লাব।

আজ সকালেই সেই ক্লাব এর কর্মকর্তা রাহুলবাবুর সাথে আমাদের কথা হয়। উনি আমাদের জানিয়েছেন এই হীরক জয়ন্তী বর্ষে তাদের পুজোর থিম ‘সংহতি’। এই অতিমারীতে ক্লাব এর বার্তা “দূরত্ব থাকুক শারীরিক, মনের নয়”। থিমের মূল ভাবনায় আছেন দীপাঞ্জন দে , প্রতিমাশিল্পী রাজেশ মন্ডল এবং আবহ সঙ্গীতে আছেন সাত্যকি ব্যানার্জী। অন্যান্যবারে সাধারণত ক্লাবের বাজেট ২০-২৫ লক্ষ থাকলেও এই সংক্রমণকালে তা অনেকটাই কাটছাট করা হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

রাহুলবাবু আমাদের এও জানিয়েছেন যে যাতে এই করোনা আবহে সংক্রমণ রুখতে যথেষ্ট প্রস্তুত এই ক্লাব। মূল মণ্ডপে এবছর ঢোকা যাবেনা, প্রবেশপথে থাকছে sanitising টানেল এবং করা হবে থার্মাল স্ক্রীনিং। সরকার থেকে আসা গাইডলাইন অনুযায়ী করা থাকবে সার্কল, মানতে হবে সামাজিক দূরত্ব। মাস্ক প্রত্যেকের জন্য আবশ্যকীয় এবং যাদের কাছে মাস্ক থাকবেনা তাদেরকে ক্লাব পক্ষ থেকে বিনামূল্যে মাস্ক দেওয়া হবে। পুজোর খাতে যত টাকা খরচা হবে সেইটা বাদে বাকি স্পনসরশিপ বা অনুদান থেকে পাওয়া টাকা সামাজিক স্বার্থে দেন করার ইচ্ছাপ্রকাশ ও করেছে ক্লাব। সব মিলিয়ে প্রস্তুতি চলছে একদম জোরকদমে। এখন দেখার বিষয় এটাই যে এই দৌড়ে এগিয়ে থাকবে কে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: