Culture

অর্থ-সংস্থানের কথা মাথায় রেখেই এবারের শারদোৎসব

আমাদের সভ্যতা থেকে হারিয়ে যাওয়া জিনিস নিয়ে এবারের থিম পুজো ২১ পল্লী সার্বজনীন দুর্গোৎসব

নিবেদিতা মিত্র : ২১ পল্লী সার্বজনীন দুর্গোৎসব এর পুজো এবছর ৭৪ তম বছর এ পা দিলো।পূজা কর্তৃপক্ষ থেকে জানা গেছে, তাদের থিম পুজোর নাম হলো কর্মচক্র।সব খরচ মিলিয়ে তাদের এবছর এর বাজেট হলো ১০ লক্ষ টাকা। কর্মচক্র নাম দেওয়ার আসল উদ্দেশ হলো আমাদের সমাজ এ এমন বহু জিনিস আছে যা আমাদের সভ্ভতা থেকে হারিয়ে গেছে। যেমন পালকি, ঢালাই করার মেশিন , ভিস্তিওয়ালা ,বহুরূপী আরো অনেক কিছু। সব থেকে মজার বিষয় হলো এবছর পুজোতে রক্ত মাংসের মানুষ রাখা রাখা হয়েছে , যারা বহুরূপীর সাজে দর্শনার্থীদের সামনে পরিবেশন করে দেখাবে ভিবিন্ন খেলা। এই বছর কোনোপ্রকার মূর্তির বাবহার করা কিন্তু হচ্চে না। যেহেতু থিম টির নাম হলো কৰ্মপক্ষেত্র সেই কথা টি মাথায় রাখাই যেতে বহুরূপীর সাজে থাকা মানুষদের অর্থের সস্থান হয় সেই পরিকল্পনা নিয়েই তারা এগোচ্ছ।

সব থাকা গুরুত্বপূর্ন বিষয়টি হলো অষ্টমীর দিন পুষ্পাঞ্জলি ও সন্ধিপুজোর দিন দুরকম ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রথম ব্যবস্থাটি হলো মণ্ডপের ভিতর কিন্তু কেউই অঞ্জলি দিতে পারবে না, সামনে বোরো এলইডি টিভি এর ব্যবস্থা থাকবে যেখানে মায়ের মুখ দেখা যাবে এবং ৬ ফুট দূরত্ত বজায় রেখেই ১০০ জন মতো মানুষ অঞ্জলি দিতে পারবে। এছাড়াও যারা এলাকাবাসি মণ্ডপে আসতে পারবেন না তাদের জন্য ফেসবুক লাইভ বা বোরো বোরো মাক্রোফ্ফনে এর মাধ্যমে অঞ্জলি দিতে পারবে।

ভিড় সামলানোর জন্য ভলেন্টিয়ার্স ও ওয়েস্ট বেঙ্গল গভর্মেন্ট এর নির্দেশনা অনুযায়ী ২৫ জনের বেশি পুজো মণ্ডপ এ তারা অনুমতি দিচ্চে না। তারা স্যানিটিজে ও থার্মাল চেকাপ এর ব্যবস্থা করেছেন। গাড়ি পার্কিং এর ক্ষেত্রে তারা কিন্তু যাদের প্রাইভেট কার বা জয়সকল দর্শনার্থী গাড়ি নিয়ে আসবেন তাদের জন্য পার্কিং এর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়াও দশমীর দিন এবছর ২১ পল্লী সার্বজনীন দুর্গোৎসব এ বরন হবে কিন্তু সিঁদুর খেলা হওয়ার আশঙ্খা খুবিই কম। এছাড়াও মণ্ডপের আসেপাশে দূরত্ব বজায় রাখাই স্টল বসানোর ব্যবস্থা হয়েছে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: