mamata banerjeeWest Bengal

করোনা আবহে আগামী বিধানসভার দামামা বাজলো : শহীদ দিবস থেকেই

২১ জুলাই, শহীদ স্মরণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একের পর এক আশ্বাস সাধারণের উদ্দেশ্যে।

পল্লবী কুন্ডু : আজ ২১ জুলাই, শহীদ স্মরণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একের পর এক আশ্বাস সাধারণের উদ্দেশ্যে। সভার শুরুতেই বক্তব্য রেখেছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি সুব্রত বক্সী। এবং তার পরেও শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে নিজের বক্তব্য শুরু করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।এই বছরে ধর্মতলায় সভা করতে না পাড়ায় যে খারাপ লাগা ছিল তা আসছে বছরে পুরোপুরি ঘুচে যাবে অর্থাৎ আগামী বছরে ২১শে জুলাই হতে চলেছে এক ঐতিহাসিক সভা। সকল শহীদদের পরিবারের কথা মনে করে তাদের পরিবারের সকলকে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। ইন্ডিয়া চায়নার বর্ডারে যে জওয়ান ভাইরা মারা গেছেন, তাদের প্রতিও সম্মান জানিয়েছেন তিনি।কোভিডকে লড়তে গিয়ে মারা গেছেন যে ডাক্তার বন্ধুরা, মারা গেছেন পুলিশ ভাইরা, দেবদত্তা সহ যে সকল আধিকারিকরা মারা গেছেন তাঁদেরও শ্রদ্ধা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এবং অবশ্যই আম্ফানে যাঁরা মারা গেছেন তাদের প্রতিও।

তবে আজকের সভায় রাজ্যবাসীর উদ্দেশ্যে যে বড় ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রী করলেন তা হল,’আমরা ক্ষমতায় থাকলে সারাজীবন ফ্রি রেশন, স্বাস্থ্য পরিষেবা ও শিক্ষার সুযোগ পাবে বাংলার মানুষ।’ আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে তৃণমূল সুপ্রিমো বললেন, ‘আগামী বছর বৃহত্তর ২১ জুলাই হবে।’অসহায়,বঞ্চিত,নিপীড়িত মানুষের পাশে সর্বদা থাকবে তৃণমূল। কেন্দ্র আমাদের অসম্মান করেছে।আমরা অপমানের বদলা নেব, বাংলা সারাজীবন মাথা উঁচু করে বাঁচবে। প্রায় সাড়ে ৪ লক্ষ পরিযায়ী পরিযায়ী শ্রমিককে দেওয়া হচ্ছে ১ লক্ষ টাকা। তিনি বলেছেন,’ট্রেনের টিকিটের দাম দিয়েই আমরা বাসে করে নিয়ে এসেছি বহু ছাত্র ছাত্রীদের।শস্য বীমার টাকা দিই আমরা, ট্রাইবাল দের জমি জোর করে নেওয়া যাবে না। তিনি এও বলেছেন,’মাটি সৃষ্টির প্রজেক্ট করছি আমরা। যে মাটি কাজে লাগে না, সেই মাটিকেই কাজে লাগাচ্ছি আমরা। মাটি দিবস আগে আমরা করেছি পরে ইউনেস্কো করেছে’ .

তিনি সাধারণ রাস্তার হকারদের কথা উল্ল্যেখ করে বলেছেন, সাধারণ মানুষকে দাসত্বে বন্ধ করে রেখেছে। অন্যদিকে পুলিশকে খুন করা হচ্ছে। ত্রিপুরার মানুষরা ভয়ে গুটিয়ে রয়েছেন এবং মুখও বন্ধ করে রেখেছেন। মুখ্যমন্ত্রী বলেন,’অত্যাচার চলছে আর বড় বড় কথা হচ্ছে’. তিনি প্রশ্ন তুলেছেন, কাশ্মীর থেকে কেন আনতে হচ্ছে ডেড বডি ? আপেল তুলতে গিয়ে, কেন মৃতদেহের আকারে ফিরতে হল তাদের ? এয়ার ইন্ডিয়া বিক্রি করে দেওয়া হচ্ছে কেন ? ৫ বছরের জন্য বিনা বেতনে এয়ার ইন্ডিয়া কর্মীদের বাড়ি পাঠানো হচ্ছে কেন ? তিনি বলেছেন,’ ঝগড়া না করে, কুৎসা না করে বাংলাকে নিয়ে গর্ব করুন, সব ক্ষেত্রে ১ নম্বর বাংলা’.

তিনি আমপান ও বুলবুল ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের কথা উল্ল্যেখ করে বলেছেন,’আম্ফানে বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্ত ৫২ লক্ষ পরিবারকে আমরা টাকা দিয়েছি, আমরা ভালো চাল দি, ফুড কর্পোরেশন দেয় খারাপ’,’ আমি যখন আছি চিন্তা করবেন না। দিদিকে বলো তে শুনে অনেক কাজ করেছি কমপ্লেন শুনে। তিনি বলেছেন, বাংলা ছাড়া বিল খরচায় স্বাস্থ পরিষেবা আর কোথাও দেখবেন না। সাধারণের জন্য জয় বাংলা প্রকল্প করা হয়েছে রাজ্য তরফ থেকে। এবং যার সমস্ত টাকা রাজ্য দেয়, কেন্দ্র নয়।অন্যদিকে, তপশিলি জাতির জন্য বলেন,’তপশিলি বন্ধুরা চিন্তা করবেন না, আমরা করব বলেছিলাম বলেই আমরা কাজ করছি, আইসিডিএস থেকে আশা কর্মীর বন্ধুরা টাকার চিন্তা করবেন না।’

মুখ্যমন্ত্রী এদিনের বৈঠকে বলেছেন, বাংলায় বেকারত্বের হার কমেছে ৪০ % .২০ লক্ষ মানুষকে নতুন করে পেনশনও দেওয়া হচ্ছে।ভারতীয় জনতা পার্টিকে সরাসরি কটাক্ষ করে এদিন বলেছেন,’বিজেপি একটা তুচ্ছ রাজনৈতিক দল, কেন বাংলায় চক্রান্ত করে তৃণমূলের কোমর ভাঙা হবে ? মানুষকে শান্তিতে ঘুমাতে দিচ্ছে না’.তার সাথে তিনি ও বলেন ‘যান গুজরাট গিয়ে গুজরাট শাসন করুন’.’সাংবাদিকদের স্বাধীনতা নেই, চ্যানেলের নেই, শিক্ষা ব্যবস্থায় স্বাধীনতা নেই,ছাত্রদের জেলে পুরছে আন্দোলন করলে। গায়ের জোর চালাচ্ছে। আমার উপর আরও অত্যাচার হবে, কিন্তু আমি ভয় পাই না। চক্রান্ত করে এরা কি করবে। মৃত বাঘের থেকে আহত বাঘ বেশি ভয়ঙ্কর। বাংলা বাংলাই চালাবে, বাইরের কেউ না।

তিনি নতুন ভোরের স্বপ্ন দেখার কথা জানিয়েছে গোটা রাজ্যবাসীকে।তিনি বলেন,’নতুন করে গড়বে বাংলা, স্বপ্ন দেখুন ভোরের স্বপ্ন সত্যিই হয়’. তিনি সম্পূর্ণ লড়াই করেই এই যুদ্ধ জিততে চান। তিনি বললেন,’ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। লড়াই এর জন্য তৈরী থাকুন। লড়াই লড়াই লড়াই চাই, লড়াই করে বাঁচতে চাই’.

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: