Weather

শীত প্রেমীদের জন্য কি খবর দিচ্ছে হাওয়া অফিস? শীতের কি তবে বিদায়ে?

আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, সোমবার থেকেই বাড়বে রাজ্যের তাপমাত্রা

পৃথা কাঞ্জিলাল : মকরসংক্রান্তি উপভোগ করেছেন অনেকেই শীতের আধিক্যে তবে এইবার আর শীত দীর্ঘস্থায়ী হলো না। বলতে গেলে শীতের ইনিংস এইবার প্রায় শেষের মুখে। আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, সোমবার থেকেই বাড়বে ফের রাজ্যের তাপমাত্রা। হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী, শনিবার সকালেও কলকাতায় সামান্য কুয়াশা ছিল। যদিও তা বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আকাশ পরিষ্কার হয়ে যায়। এদিন শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৪.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের তুলনায় ১ ডিগ্রি বেশি। শুক্রবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৪.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের তুলনায় এক ডিগ্রি কম। জেলায় তাপমাত্রার পারদ এখনও মোটামুটি ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচেই রয়েছে। তবে উত্তর পশ্চিম ভারতে শৈত্যপ্রবাহ জারি থাকবে।

জেলায় তাপমাত্রার পারদ এখনও মোটামুটি ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচেই রয়েছে। পুরুলিয়ার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আসানসোলের তাপমাত্রা ১০.৩ এবং পানাগরে ১০.১ ডিগ্রি তাপমাত্রা। কৃষ্ণনগর এবং বীরভূমের শ্রীনিকেতনের তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। নতুন বছর শুরুর কয়েকদিনের মধ্যেই বাংলায় উধাও হয়ে গিয়েছিল শীত। পৌষেও উষ্ণ আমেজ উপভোগ করতে পারছিলেন রাজ্যবাসী। তবে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস মতো মকর সংক্রান্তির আগে পারদ পতন হয়। কিন্তু দুঃসবাদ একটাই। শীত দীর্ঘস্থায়ী হল না। বলা যেতে চলতি মরশুমের মতো ব্যাটিং শেষ শীতের। কারণ, সোমবার থেকে ক্রমশ বাড়বে তাপমাত্রার পারদ। মঙ্গল ও বুধবার দার্জিলিং, কালিম্পং-সহ উত্তরবঙ্গের পাহাড়ি এলাকায় হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা। যা শুনেই মনখারাপ শীত প্রেমীদের। তবে উত্তর পশ্চিম ভারতে শীত এখনো জারি থাকবে। তার প্রভাবে বিহার সংলগ্ন জেলাগুলিতে দিনের বেলাতেও শীত থাকবে জাঁকিয়ে। ওড়িশা ও গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে কুয়াশার সর্তকতা। আগামী কয়েকদিন রাজধানী দিল্লি-সহ পাঞ্জাব, হরিয়ানা, চণ্ডীগড়, উত্তরপ্রদেশ, বিহারে ঘন কুয়াশার সর্তকতা জারি রয়েছে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: