Nation

বাংলা জয়ের কি ছক কষছে বি জে পি? সফর শেষে কি মত শাহ র?

সংগঠন শক্তিশালী করার নির্দেশ দিয়ে গেলেন অমিত শাহ অন্যদিকে তৈরী হচ্ছে তৃণমূল ও

পৃথা কাঞ্জিলাল : গত কয়েকদিন আগেই রাজ্যে অমিত শাহ (Amit Shah) এসে বাংলা দখলের ডাক দিয়ে গিয়েছেন। বাংলায় ২০২১ এর বিধানসভা ভোট সম্ভবত হতে চলেছে আগামী বছরের এপ্রিল বা মে মাসে। তার আগে শুধুমাত্র সোশ্যাল মিডিয়াতে ভরসা নয়, বাংলার প্রতিটি বুথে বুথ কমিটি এবং এক ই সঙ্গে সংগঠন শক্তিশালী করার নির্দেশ দিয়ে গেলেন শাহ। তিনি সাফ জানিয়ে গেলেন, বুথ সংগঠন শক্তিশালী না হলে জেতা মুশকিল হবে।

তিনি বাংলায় ২০০ আসন জয়ের টার্গেট দিয়ে মুকুল এবং দিলীপদের বুথমুখী হওয়ার নিজন্য ও জানিয়েছেন। তবে বাংলায় ভোটের দায়িত্ব তিনি এখনই কারোর হাতে তুলে দিলেন না। কার্যত নিজের হাতেই বাংলা জয়ের ব্যাটন রেখে বাংলার বিজেপি নেতাদের ময়দানে ঝাঁপিয়ে পড়ার নির্দেশ দিয়ে গেলেন তিনি। অমিত শাহ বাংলার প্রতিটি বিজেপি সাংসদদের নির্দেশ দেন, আগামী নভেম্বরের মধ্যে রাজ্যের সমস্ত ব্লক স্তরে বুথ কমিটি গঠন এবং ডিসেম্বরের মধ্যে রাজ্যের সমস্ত পঞ্চায়েতে জনসংযোগ করার। যাবার আগে তিনি জানিয়ে যান চলতি বছরের মধ্যেই বাংলার বুকে তৃনমূলকে হারানোর জন্য জমি তৈরি করতে হবে । ২০২১ সালে বিজেপির হয়ে কে বাংলায় মুখ্যমন্ত্রী পহিসেবে পা রাখবেন সেই বিষয়টি নিয়ে এখনই গুরুত্ব দিতে নারাজ কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতৃত্ব।

তবে তার আগে সংগঠনকে আরো শক্তিশালী করে তোলা এবং নতুন ভোটার হওয়া তরুন তরুণীদের মাধ্যমে সংগঠনকে গড়ে তোলার নির্দেশ দেন তিনি। এদিকে, রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘আমাদের সবাইকে এক হয়ে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়তে হবে। আমরা ইতিমধ্যে রাজ্যের ৬৩ হাজার বুথে অমিতজির ভার্চুয়াল সভা শুনিয়েছি। আমরা চেষ্টা করছি রাজ্যের সংখ্যালঘু অধ্যুষিত বুথগুলিতে আমাদের দুর্বল সংগঠনকে মেরামতি করতে।’

দিলীপ বাবুর কথায় বাংলা এ এইবার পরিবর্তন আসন্ন।। তিনি আরও বলেন, অমিতজি নির্দেশ দেওয়ার পর সমস্ত কিছু যুব মোর্চাকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। যুব মোর্চার মাধ্যমে সদস্য সংগ্রহ এবং নতুন ভোটারদের নিয়ে সংগঠনকে আরও মজবুত করে গড়ে তোলা হবে। মনে করা হচ্ছে অমিত শাহের আগমনের পরেই রাজ্য বিজেপি বেশ চনমনে হয়ে উঠেছে। রাজ্যস্তরে সংগঠনকে ঢেলে সাজিয়ে ২০২১ এর বিধানসভাকে পাখির চোখ করে রাজ্যের শাসকের সঙ্গে সম্মুখ সমরে নামতে তৈরি হচ্ছে বাংলার বিজেপি।

লোকসভা ভোটে কালিয়াগঞ্জে খারাপ ফল করেছিল তৃণমূল। কিন্তু তারপর কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা উপনির্বাচনে জয়ী হয়ে তৃণমূল। জয়ের পরই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, কালিয়াগঞ্জের মানুষকে ধন্যবাদ জানাতে আসবেন তিনি। সেই কথা রেখেই এদিন কালিয়াগঞ্জে সভা করেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রশাসনিক সভায় ঘুরে দাঁড়ানোর দৃষ্টান্ত হিসেবে কালিয়াগঞ্জের কথা তুলে ধরেন নেত্রী। সেখানে দাঁড়িয়েই তিনি ঘোষণা করেন, তাঁরা লড়াই করতে রাজি এক ইঞ্চি ও জমি ছাড়বেন না তারা। যদিও এখনো তৃনমূলের কর্মসূচি নিয়ে কিছু জানা যায়নি তবে তারা ও লেগে পড়েছেন বি জে পি নিধনে। তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় কটাক্ষ করে বলেন ‘ ট্রাম্পের মতন কথা বলছে বি জে পি।’ সুতরাং শাহ র কলকাতা সফর কতটা সফল হবে তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। অপেক্ষায়ে রাজ্যবাসী।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: