Big Story

গিনিস বুকে উঠল নাম, সরজুর তীরে জ্বলে উঠল ৫ লক্ষ ৮৪ হাজার ৫৭২ প্রদীপ

আলোর উৎসবে গড়ে উঠল বিশ্বরেকর্ড, আনন্দ দ্বিগুন অযোধ্যাবাসীর

দেবশ্রী কয়াল : দীপাবলির শুভ উৎসবে আলোর রোশনাইয়ে ভরে গেছে অযোধ্যার মন্দির (Ayodhya Temple)। আর এই উৎসব উপলক্ষেই, গোবর দিয়ে তৈরী ৫ লক্ষ ৮৪ হাজার ৫৭২টি প্রদীপ জ্বলে উঠল রাম জন্মভূমিতে। আলোয় আলোকিত হয়ে উঠল গোটা অযোধ্যা। আর সেই জন্যেই গিনেস বুকে নিজের নাম তুলল অযোধ্যামন্দির। অযোধ্যায় তৈরী হওয়া রামমন্দির নিয়ে মানুষের উৎসাহের কোনো শেষ নেই। আর শুক্রবার তৈরী হওয়া এই বিশ্বরেকর্ড আরও অনেক মাত্রায় বাড়িয়ে দিল সেলিব্রেশনের মাত্রা। যার জেরে এক বিরাট দীপাবলি উৎসবের সাক্ষী থাকল অযোধ্যা তথা সারা দেশ।

বছরই আলোয় সেজে ওঠে রাম জন্মভূমি। তবে এবার আরও বেশি সংখ্যক প্রদীপ জ্বালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath)। এবারের প্রদীপ তৈরিতেও ছিল বিশেষ চমক। ঠিক হয়, প্রথমবার গোবরের তৈরি প্রদীপ দিয়ে সাজিয়ে তোলা হবে অযোধ্যাকে। আর সেই স্বপ্নই বাস্তবায়িত হয় গতকাল শুক্রবার। লোকশিল্পীদের নৃত্য পরিবেশন, ট্যাবলোয় রামলীলা প্রদর্শন আর সরজুর তীরে লক্ষ লক্ষ প্রদীপের আলোয় জমজমাট হয়ে ওঠে এবছরের দীপোত্‍সব। বিশ্বের মধ্যে প্রদীপ প্রজ্জ্বলনে দীর্ঘতম লাইন গড়েই গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড(Guinness world record book) রেকর্ডসে নাম ওঠে এই উত্‍সবের।

এদিন দীপোত্‍সবের উদ্বোধনে মুখ্যমন্ত্রীর পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন রাজ্যপাল আনন্দিবেন প্যাটেলও। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ধন্যবাদ জানিয়ে এদিন আদিত্যনাথ বলেন, ‘‌আমরা রাম মন্দির তৈরি এবং তার ভিত্তিপ্রস্থ স্থাপনের সাক্ষী থাকতে পেরেছি। তাই নিজেদের অত্যন্ত সৌভাগ্যবান মনে করি। গত ৫০০ বছরের লড়াইয়ে বহু মানুষ রাম মন্দির গড়ার স্বপ্ন দেখেছেন। তাঁদের অনেকেই আজ নেই। তবে শেষমেশ সেই স্বপ্ন সত্যি করেছেন প্রধানমন্ত্রী। তাই তাঁকে অনেক ধন্যবাদ। সমস্ত কোভিড বিধি মেনেই আমরা দীপোত্‍সব পালন করছি। রাম মন্দির গড়ার ক্ষেত্রেও সব প্রোটোকল মাথায় রেখেই কাজ হবে।’‌ অর্থাৎ করোনা আবহেও উৎসবে থাকেনি কোনো খামতি, বরং বিধি নিষেধ মেনেই আনন্দের জোয়ারে ভেসেছেন অযোধ্যার মানুষ।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: