Sports Opinion

একেই আর্থিক ঘাটতি তার উপর বিসিসিআইকে দিতে হবে ৪ হাজার ৮০০ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ !

একের পর এক বিপদ আছড়ে পড়ছে খেলার মাঠে

দেবশ্রী কয়াল : লেগেই আছে একের পর এক সমস্যা। করোনার জেরে প্রভাব পড়েছে বিভিন্ন ক্ষেত্রে। বাদ যায়নি খেলার ক্ষেত্র ও। মারণ করোনার জেরে দীর্ঘ মাস ধরে বন্ধ আছে খেলা। শূন্য হয়ে আছে খেলার ম্যাথ। যার জেরে কিন্তু ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। একে খেলা হচ্ছে না বলে আর্থিক ক্ষেত্রে ঘাটতি, যদিও বা আইপিএল হলে খরচের পরিমানটা মেটানো যেত। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে জুড়ে এসে বসেছে অন্য আর এক বিপদ। পুরানো মামলার জেরে এবার ৪ হাজার ৮০০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে বিসিসিআইকে।

আইপিএলের উদ্বোধনী মরশুম থেকে হায়দরাবাদের ফ্র্যাঞ্চাইজি হিসেবে আইপিএলে খেলত ডেকান চার্জার্স। ২০০৯ মরশুমে চ্যাম্পিয়নও হয় তারা। কিন্তু ২০১২ সালের পর আর তাদের দেখা যায়নি। এরপর চুক্তি ভঙ্গের অভিযোগে সেই বছর সেপ্টেম্বরে এই দলকে চিরতরে নির্বাসিত করে আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। কিন্তু ফ্র্যাঞ্চাইজির তরফে এমন অভিযোগ মিথ্যে বলেই দাবি করা হয়েছিল। এরপর সেই অভিযোগের ভিত্তিতে বিসিসিআইকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে বোম্বে হাই কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিল ডেকান। আর আজ সেই মামলারই রায় গেল ফ্র্যাঞ্চাইজির পক্ষে। বেআইনিভাবে টুর্নামেন্ট থেকে নির্বাসিত করা হয়েছে ডিসিকে। আর তার ‘ক্ষতিপূরণ’ হিসেবে বিসিসিআইকে ৪ হাজার ৮০০ কোটি টাকা দিতে হবে।

আদালতের এমন নির্দেশনা জারি হওয়ার পর থেকেই চিন্তার মধ্যে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড। একেই লকডাউনের মধ্যে সর্বত্র আর্থিক ঘাটতি। পকেটে রয়েছে টান। তাই এই পরিস্থিতিতে, ৪ হাজার ৮০০ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ বিসিসিআইয়ের কাছে কিন্তু বেশ সমস্যার সৃষ্টি করেছে, মাথায় পড়েছে হাত। যদিও বিষয়টি নিয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও মুখ খোলেনি বিসিসিআই। এই লকডাউনে এত পরিমান টাকার বাড়তি চাপে এখন কী ভাবে সবকিছু সামাল দেবে বিসিসিআই তাই দেখার বিষয়।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: