West Bengal

রহস্যময় মৃত্যু ! ফ্ল্যাটের সিঁড়ির রেলিং থেকে ঝুলছে ইন্দ্রজিত্‍বাবুর দেহ

পর্ণশ্রীর ইন্দিরা দেবী রোডের সন্দীপ্তা অ্যাপার্টমেন্ট থেকে উদ্ধার হয়েছে ইন্দ্রজিত্‍ দাস নামের এক প্রোমোটারের ঝুলন্ত দেহ।

পল্লবী কুন্ডু : রহস্যময় মৃত্যু ! খুন নাকি আত্মহত্যা ? ঘটনাকে ঘিরে দানা বাঁধছে রহস্য।পর্ণশ্রীর ইন্দিরা দেবী রোডের সন্দীপ্তা অ্যাপার্টমেন্ট থেকে উদ্ধার হয়েছে ইন্দ্রজিত্‍ দাস নামের এক প্রোমোটারের ঝুলন্ত দেহ। জানা গিয়েছে, ওই বহুতলের তিন তলায় স্ত্রী এবং দুই মেয়েকে নিয়ে থাকতেন ইন্দ্রজিত্‍বাবু। পুলিশ সূত্রে খবর, গতকাল রাতে মেয়েদের নিয়ে পাড়ারই দোকানে গিয়েছিলেন ইন্দ্রজিত্‍বাবুর স্ত্রী এবং সেই সময় তিনি বাড়িতে একাই ছিলেন। ঘন্টাখানেক পর তারা বাড়ি ফিরে আসেন। কিন্তু কিন্তু ফ্ল্যাটের সামনে এসে আঁতকে ওঠেন মা ও দুই মেয়ে। তাঁরা দেখেন ফ্ল্যাটের সিঁড়ির রেলিং থেকে ঝুলছে ইন্দ্রজিত্‍বাবুর দেহ।

তার সেই ঝুলন্ত দেহ দেখে ভয় আঁতকে ওঠে তার স্ত্রী এবং মেয়েরা। তাদের চিৎকার শুনে বাইরে বেরিয়ে আসে অন্যান্য ফ্ল্যাটের বাসিন্দারা। তাদের মধ্যেই কেউ তৎক্ষণাৎ খবর দেয় পুলিশকে। ঘটনাস্থলে এসে ইন্দজিত্‍বাবুকে উদ্ধার করে বিদ্যাসাগর হাসপাতালে নিয়ে যায় তারা। সেখানে প্রোমোটারকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিত্‍সকরা। মৃতের পরিবারের দাবি, ইন্দ্রজিত্‍বাবুকে কেউ খুন করে দেহ ওভাবে সিঁড়ির রেলিংয়ে ঝুলিয়ে দিয়ে গেছে। কোনও ভাবেই মৃতের পক্ষে আত্মহত্যা করা সম্ভব হয় না। কারণ তিনি ভাল ভাবে হাঁটাচলাও করতে পারেন না।

সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে জানা যাচ্ছে, ২০১৭ সালে একটা বড় অ্যাক্সিডেন্ট হয় ইন্দ্রজিত্‍ দাসের। সে বার প্রাণে বেঁচে গেলেও তাঁর ডান পায়ের হাড় ভেঙে যায়। এরপর থেকেই ভাল ভাবে হাঁটাচলা করতে পারতেন না ইন্দ্রজিত্‍বাবু। বাড়ির মধ্যেই অল্প চলা ফেরা করতেন। সেই মানুষের পক্ষে এভাবে আত্মহত্যা করা অসম্ভব বলেই জানাচ্ছে পরিবার। কোনও সুইসাইড নোটও উদ্ধার করেনি পুলিশ।

তবে কীভাবে ইন্দ্রজিত্‍ দাসের মৃত্যু হল তা ভাবাচ্ছে পুলিশকে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পর্ণশ্রী থানার পুলিশ। মৃতের সঙ্গে কারও কোনও ব্যক্তিগত বা পারিবারিক শত্রুতা ছিল কিনা তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা। মৃতের স্ত্রী এবং মেয়েদের সঙ্গে কথাবার্তা বলা হচ্ছে। ইন্দ্রজিত্‍বাবু কোনও কারণে অবসাদে ভুগছিলেন কিনা তাও জানার চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।আশা করা যাচ্ছে খুব শীঘ্রই ফল মিলবে তদন্তে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: