West Bengal

মারা গেছেন ১২ ঘন্টা, কিন্তু এখনও করোনা আক্রান্তের মৃত দেহ পড়ে রয়েছে বাড়িতেই !

কেউ বাড়িয়ে দেয়নি সাহায্যের হাত, বিনা চিকিৎসা মারা যান বৃদ্ধ

দেবশ্রী কয়াল : আবারও অমানিকতার দৃশ্য ফুটে উঠল কলকাতায়। রবিবার মধ্যরাত থেকে বাড়িতেই পরে রয়েছে করোনা আক্রান্তের মৃতদেহ। প্রায় ১৪ ঘণ্টা পার হয়ে গেলেও, স্থানীয় থানা থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য দফতর, এমনকি প্রাক্তন কাউন্সিলারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও, মেলেনি কোনো সাহায্যের হাত, অভিযোগ জানায় পরিবারের সদস্যেরা। আর এর পরেই উদ্বিগ্ন ছড়ায় সারা এলাকায়। এমন নিন্দাজনক, অমানবিক ঘটনাটি ঘটেছে, বেহালার সাহাপুরে।

জানা যাচ্ছে, গতকাল রবিবার রাত ১২টা নাগাদ তীব্র শ্বাসকষ্ট শুরু হয় ৬২ বছর বয়সি ওই ব্যক্তির। এরপর প্রবল শ্বাস কষ্টের জেরে রাতেই মারা যান তিনি। পরিবারের সদস্যদের বক্তব্য, বৃদ্ধের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর, স্বাস্থ্য দফতরের তরফে বাড়িতে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়। শ্বাসকষ্ট হলে হাসপাতালে ভর্তি করার জন্য বলা হয়েছিল। এরপর রবিবার রাতে তাঁর শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। কিন্তু সেই সময় প্রাক্তন কাউন্সিলরকে বলেও কোনও কাজ হয়নি। ফোন করা হয়েছিল স্বাস্থ্য দফতরেও। কিন্তু মেলেনি কোনো সাহায্য। কার্যত বিনা চিকিৎসায় মারা যান ওই বৃদ্ধ।

কিন্তু মারা যাওয়ার পরে, এখনও দেহ সরানো হয়নি তাঁর। পরিবারের বাকি ৩ সদস্য এখন রয়েছেন হোম কোয়ারেন্টাইনে। কিন্তু মারা যাওয়ার ১২ ঘণ্টা পরও পুলিশ-প্রশাসনের তরফে কোনও সাহায্য না মেলায় ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা। ১১৯ নম্বর ওয়ার্ডের প্রাক্তন কাউন্সিলর জানিয়েছেন, দেহ সত্‍কারের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করা হচ্ছে।

তবে করোনা আক্রান্ত বা সন্দেহে চিহ্নিত হলেও তাঁদের অনেকের প্রতি আমানবিক আচরণের ছবি ছবি ফুটে উঠছে, রাজ্যের নানান প্রান্তে। অনেক সময় প্রশাসনিক গাফিলতিরও অভিযোগ করছেন পরিবারের সদস্যরা। প্রশ্ন উঠছে, এইভাবেই সবাই যদি অমানবিক আচরণ করতে থাকেন, তাহলে কীভাবে হবে ? এই কঠিন পরিস্থিতিতে মানুষকেই কিন্তু মানুষের সাহায্যের জন্যে এগিয়ে আসতে হবে।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: