Entertainment

বিগবসের সম্প্রচার বন্ধ হোক, টুইট্যারে ট্রেন্ডিং নেটিজেনদের

অনুঠান শুরুর আগেই বিতর্কের তুঙ্গে রয়েছে বিগবস

দেবশ্রী কয়াল : ভারতীয় টেলিভিশনের সবথেকে জনপ্রিয় শো বিগবস। সবথেকে বেশি কন্ট্রোভার্সিয়াল ও বটে। সেই ঘটে নিত্যদিন কিছু না কিছু ঘটতে থাকে। এদিকে ঘোষণা হয়ে গেছে বিগবসের ১৪ তম সিজনের। আগামী ১৩ই অক্টবর থেকেই শুরু হতে চলেছে এই জনপ্রিয় সর্বাধিক সমালোচিত অনুষ্ঠান। এদিকে প্রিমিয়ারের তারিখ ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই উত্তাল হয়েছে ট্যুইটার। কারণ সদ্যই শো এর হোস্ট সলমন খানের বিরুদ্ধে স্বজন পোষন এবং প্রয়াত অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু জন্য তিনিও দায়ী এমনটাই অভিযোগ এসেছিল। কফি উইথ করণ সহ বিগবসের মতো অনুষ্ঠানকেও ত্যাগ করার জন্য টুইটারে ট্রেন্ডিং শুরু হয়েছে।

আগামী ৩রা অক্টোবর বিগবসের ১৪ তম সিজনের প্রিমিয়ার হবে, এমনটাই জানানো হয়েছে অনুষ্ঠানের নির্মাতাদের তরফে। তবে করোনা পরিস্থিতিতে এই বারে অনুষ্ঠানে দর্শকদের রাখা হবে না। অর্থাত্‍ মঞ্চে সলমন খান ছাড়া অন্য কোনও ব্যক্তি উপস্থিত থাকবেন না। তারিখ ঘোষনার জন্য একটি বিশেষ টিজারও সঙ্গে পোস্ট করা হয়েছিল টুইট্যারে।

সেই টিজারটিতে দেখা গিয়েছে সঞ্চালক সলমন খানকে, যেখানে তাঁকে প্রথমে হাত পা বাঁধা এবং মুখে মাস্ক পড়ে থাকতে দেখা যায়। সেই অবস্থা থেকে নিজেকে মুক্ত করবেন এবং মুখের মাস্ক খুলে দিয়ে বলবেন, এই বারের বিগবস আসছে ২০২০ কে সঠিক জবাব দিতে। কিন্তু টিজার মুক্তির সাথে সাথেই বিগবসকে বয়কট করার জন্য প্রচার শুরু হয় ট্যুইটারে। নেটিজেনদের বক্তব্য, সুশান্তের মৃত্যু, বলিউডে স্বজন পোষণ, মাদক চক্রের আমদানি – এই সমস্ত ঘটনার সঙ্গে অভিনেতা সলমন খানেরও কোনো না কোনো ভাবে যোগ রয়েছ। তাই এই শো অবিলম্বে বয়কট করা উচিত।

বিগ বসের বাড়িতে তারকাদের একে অপরের সঙ্গে লড়াই দেখার মধ্যে কোনও বিনোদন নেই, তাই বিগবসেরও সম্প্রচার হওয়ার কোনও প্রয়োজন নেই বলে কটাক্ষ নেটিজেনদের। অন্যদিকে সলমন ফ্যানরা বলতে থাকেন, এই অনুষ্ঠান বা সলমন খানের সঙ্গে সুশান্তের মৃত্যু কোনও যোগ নেই। তাই এই ধরণের অভিযোগ তুললেও কেউ বিগবস বয়কট করবে না। অনুষ্ঠান যেমন হওয়ার, তেমনই হবে। এখন দেখার বিষয় আদতে কী হয়, এবং এই জল কতদূর গড়ায়।

Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: