Nation

গডসেকে ‘দেশপ্রেমিক” আখ্যা, ‘জ্ঞানশালা’ উৎসর্গ হিন্দু মহাসভার

মহাত্মা গান্ধীর হত্যাকারীকে এতো সম্মান প্রদান? ফের বিতর্কের শীর্ষে হিন্দু মহাসভা

মধুরিমা সেনগুপ্ত : নাথুরাম গডসেকে আগেই দেশপ্রেমিক আখ্যা দিয়েছিলো হিন্দু মহাসভা। হয়েছিল মূর্তি বসিয়ে মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনও। এইবার আরো বাড়াবাড়ি করলো হিন্দু মহাসভা। আস্ত একটা জ্ঞানশালা উৎসর্গ করা হলো হিন্দু মহাসভাকে। স্বাধীনতার পরবর্তীকালের দেশভাগ, গডসের দেশপ্রেম এবং তার আদর্শ সম্পর্কে সকলকে জানাতেই নাকি এমন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে তারা। এই জ্ঞানশালাটি তারা মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিয়রের দৌলতগঞ্জে স্থাপন করেছে বলে জানা যাচ্ছে। সংগঠনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে গডসের বক্তৃতার অংশ, তার দেশপ্রেমের নিদর্শন, তার মাহাত্ম্য নিয়ে নানা রচনা, গাঁধী হত্যার পরিকল্পনা এবং দেশভাগ সংক্রান্ত লেখালেখি নিয়ে একটি লাইব্রেরি গড়ে তোলা হয়েছে। তাতে দেশভাগ এবং বিস্মৃত স্বাধীনতা সংগ্রামীদের নিয়ে নানা লেখালেখিও রয়েছে এবং যাতে গডসের দেশভক্তি এবং আদর্শ বুঝে তাঁর পথ অনুসরণ করতে পারেন সকলে তার জন্য রয়েছে অল্পবয়সি ছেলেমেয়েদের জন্য রয়েছে পঠন-পাঠনের ব্যবস্থাও।

সাথে গড়ে তোলা হয়েছে একটি ওয়ার্কশপ যেখানে শুধু গডসেকে নিয়ে আলোচনাই হবে না, বরং কিভাবে তার পথ অনুসরণ করে যাতে এগিয়ে যাওয়া যায় সেই পথও প্রশস্ত করা হবে। গডসে, বীর সাভরকর এবং রানি লক্ষ্মীবাঈয়ের ছবিতে পুজো দিয়ে রবিবার ওই ‘জ্ঞানশালা’র শুভ সূচনা হয়। হিন্দু মহাসভার সর্বভারতীয় সহ সভাপতি জয়বীর ভরদ্বাজ বলেন, ”অবিভক্ত ভারতের দাবিতে অনড় ছিলেন উনি। তার জন্য নিজের প্রাণও বিসর্জন দিয়েছেন। এই লাইব্রেরি থেকে যুবসমাজের মধ্যে সত্যিকারের জাতীয়তাবাদ জাগিয়ে তুলতে চাই আমরা, যার জন্য চিরকাল লড়ে গিয়েছেন গডসে।”

তিনি আরো বলেন কংগ্রেসের জন্যই ১৯৪৭ সালে দেশভাগ হয়েছিল। জওহরলাল নেহরু এবং মহম্মদ আলি জিন্নার ক্ষমতা দখলের উচ্চাকাঙ্খার জন্যই দেশভাগ হয়েছিল বলে অভিযোগ তার। যেহেতু গোয়ালিয়র থেকেই গান্ধীহত্যার জন্য পিস্তল কিনেছিল গডসে তাই সেখানেই লাইব্রেরি তৈরি করার পরিকল্পনা ছিল তাদের।সেই গোয়ালিয়রের মাটিতেই তাকে শ্রদ্ধা জানানো হয়। পূর্বে নিজেদের অফিসে গডসের মূর্তি বসিয়ে একটি মন্দিরও স্থাপন করে হিন্দু মহাসভা এবং তা নিয়ে কংগ্রেস প্রতিবাদ শুরু করলে শেষমেশ তা সরিয়ে নেয় তারা।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: