Health

টাকার লোভে মৃত রোগীকে ভেন্টিলেশনে রেখেছিল হাসপাতাল, বাড়িয়ে যাচ্ছিল বিলের পরিমান

গুরুতর অভিযোগ পরিবারের, ময়নাতদন্তে যাচাই করতে হবে মৃত্যুর তারিখ ও সময়

দেবশ্রী কয়াল : করোনা মানুষের মধ্যে সৃষ্টি করেছে আতঙ্ক। আর তার থেকে বড় ভয় চিকিৎসার খরচ নিয়ে। কারন করোনা চিকিৎসায় যে পরিমান বিলের অভিযোগ উঠেছে বেসরকারি হাসপাতাল গুলির বিরুদ্ধে তাতে স্বাভাবিক ভাবে চিকিৎসা করতে গেলে রীতিমত ভয় পাচ্ছেন মানুষ। আর আবারও গতকাল সেই অভিযোগ উঠল হুগলি জেলার চণ্ডীতলার বাসিন্দা তরফে।

অভিযোগ ওঠে, গত মাসের ২৩ তারিখ কৃষিকাজের সঙ্গে যুক্ত ব্যাক্তি শেখ শবর আলির শ্বাসকষ্টের সমস্যা হয়। তখন বাড়ির লোকেরা সবাই উত্তরপাড়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে তাঁকে নিয়ে যান। কিন্তু শারীরিক অসুস্থতা বাড়ার কারনে পরিবারের লোকেদের প্রথমে কলকাতায় নিয়ে আসার পরামর্শ দেওয়া হয়। এরপর গতমাসের ২৫ তারিখ তিলজলা রোড়ের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় পঞ্চান্ন বছরের শেখ শবরকে।

এরপর স্বাস্থ্যবিধি মেনেই রোগীর করোনা পরীক্ষা করার কথা জানানো হয় হাসপাতালের তরফে। এরপর ২৬ তারিখ করোনা পরীক্ষা করা হলে জানা যায় শেখ শবর আলি করোনা পজিটিভ। এদিকে করোনা সংক্রমণের জেরে বাড়ির লোক রোগীর সঙ্গে দেখা করতে পারেন না। কিন্তু প্রতিদিন বিশাল টাকার অঙ্কের বিল মিটিয়েই যেতে হত শবর আলির পরিবারকে। কিন্তু এত টাকা দিতে পারছিল না রোগীর পরিবার তাই তাঁরা ভাবে অন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কথা।এরপর সোমবার বিল মিটিয়ে অন্য হাসপাতালের জন্য অ্যাম্বুলেন্স ব্যবস্থা হবার পরেই হাসপাতালের তরফে জানানো হয় মৃত্যু হয়েছে শবর আলির। ক্ষোভে ফেটে পড়েন চন্ডিতলার পরিবার। তাঁদের অভিযোগ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ইচ্ছা করেই এইগুলি করছিল।

এই ঘটনায় শবর আলির বন্ধু বলেন, সোমবার নয়, শবর মারা গেছে শনিবার। একজন মৃত ব্যাক্তিকে ভেন্টিলেশনে রেখে কেবল টাকা নেবার ছক ফেঁদে ছিল হাসপাতাল। এই সমস্ত অভিযোগ কড়েয়া থানায় জানানো হয়। পরিবারের তরফে পুলিশকে আবেদন করা হয় যাতে দেহটির ময়নাতদন্ত করে প্রকৃত মৃত্যুর দিন জানানো হয়। এছাড়া রোগী করোনা পজিটিভ ছিলেন কিনা সেটাও সন্দেহ থাকায় তারও উত্তর চান মৃতের আত্মীরা। এই মুহূর্তে মৃত দেহটিকে শিয়ালদহের নীল রতন মেডিকেল কলেজে ও হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। জানা যাচ্ছে ময়নাতদন্ত হবে বুধবার। যদিও ওই হাসপাতালের তরফে এখনও কোন প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: