Science & Tech

সুরক্ষিত থাকবে গ্রাহকদের ম্যাসেজ, দাবি হোয়াটস্ ‌অ্যাপের

চারিদিকে চলছে বিতর্ক, মুখ খুলল সংস্থা

দেবশ্রী কয়াল : হোয়াটস্‌অ্যাপ (What’s App) নিয়ে বিতর্ক এখন তুঙ্গে। আদতেই কী তা এখন সুরক্ষিত আর ? এই প্রশ্নই এখন প্রত্যেকটা মানুষের মুখে। কারন এখন বেশিরভাগ মানুষ ব্যবহার করেন এই জনপ্রিয় অ্যাপটি, খুব কম মানুষ আছেন যাঁরা এর থেকে অবগত রয়েছেন। তবে এই অ্যাপই নাকি এবার মানুষের ফোনের ভিতর দিচ্ছে উঁকি। গত কয়েকদিন ধরেই শোনা যাচ্ছে, গ্রাহকদের তথ্য আর গোপন রাখছে না হোয়াটস্‌অ্যাপ। সম্পূর্ণটাই ফাঁস করে দিচ্ছে তারা। সম্প্রতি ফেসবুক এর মালিকাধীনের আওতায় এসেছে হোয়াটস্‌অ্যাপ। তারপরেই হোয়াটস্‌অ্যাপ পরিবর্তন করেছে তার প্রাইভেসি সেটিংস। আর সেই নিয়েই এখন আশঙ্কার মধ্যে ভুগছেন গ্রাহকরা।

আর তার জেরে অনেকেই হোয়াটস্‌অ্যাপ ছেড়ে অন্য মেসেজিং অ্যাপে ঝুঁকছেন, কারন কেউই এখন আর ঝুঁকি নিয়ে হোয়াট্স অ্যাপে থাকতে চাইছেন না। গ্রাহক যখন ছেড়ে যাওয়ার পথে তখন চাপে পড়ে এবার মাঠে নামল হোয়াটস্‌অ্যাপ। তারা মানুষকে আশ্বাস দিচ্ছে, ‘‌আপনাদের ব্যক্তিগত মেসেজ এন্ড টু এন্ড সাবস্ক্রিপশনের মাধ্যমে সুরক্ষিত থাকবে। তা কোথাও কেউই দেখতে পাচ্ছে না, না তারা নিজেরা দেখতে পাবে বা ফেসবুক কেউই সেই ব্যক্তিগত কোনো ম্যাসেজ বা তথ্য দেখতে পারবে না, সম্পূর্ণটাই আগের মত সুরক্ষিত থাকবে’‌।

এরপর সংস্থার তরফে এও জানানো হয়েছে, গ্রাহকদের কল বা মেসেজ অন্য কেউ দেখতে পারবেন না। এমনকী বর্তমান অভিভাবক সংস্থা ফেসবুক-ও হোয়াটস্‌অ্যাপ গ্রাহকদের মেসেজ বা কল দেখতে পারবে না। গত সপ্তাহেই নিজেদের প্রাইভেসি পলিসি আপডেট করেছে এই সংস্থা। আর তার পর থেকেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। এখন প্রত্যেকটি গ্রাহকের ফোনেই একটা নোটিফিকেশন আসছে যে আগামী ৮ই ফেব্রুয়ারি থেকে কার্যকর হবে নতুন এই আপডেট। তবে সংস্থা জানাচ্ছে ‘‌বন্ধু বা পরিবারকে করা আপনাদের মেসেজের গোপনীয়তা ভঙ্গ করবে না আমাদের নতুন নীতি।’‌

কিন্তু কিছুতেই যেন গ্রাহকরা তা বিশ্বাস করে উঠতে পারছেন না। সুরক্ষা নিয়ে যেহেতু প্রশ্ন তাই বিকল্প অ্যাপের খোঁজে মানুষ। তবে নিজের গ্রাহকদের ধরে রাখতে এদিন এইসব কিছুকে গুজবের আখ্যা দিয়েছে সংস্থা। এবং জানিয়েছে আদতে তাদের নতুন এই অপডেশন কী এবং এর মাধ্যমে কীভাবে গ্রাহকের কোনো রকম ক্ষতি হবে না। সংস্থা জানায়, —

• হোয়াটসঅ্যাপ বা ফেসবুক কোনো গ্রাহকেরই ব্যক্তিগত মেসেজ দেখতে পারে না বা হোয়াটসঅ্যাপ কলের কথাবার্তাও শুনতে পারে না।
• কারা মেসেজ বা কল করছেন, হোয়াটসঅ্যাপ সেই তথ্য রাখে না।
• গ্রাহকদের শেয়ার করা লোকেশনটিকেও দেখতে পারে না হোয়াটসঅ্যাপ এবং ফেসবুক।
• কোনো গ্রাহকের কন্ট্যাক্টস এ থাকা ফোন নম্বর শেয়ার করে না হোয়াটসঅ্যাপ।
• হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের সকল তথ্যই গোপন থাকে, এবং সেখানে যে কেউ কোনো লিঙ্কের মাধ্যমে জয়েন করতে পারে না।
• কোনও মেসেজ সরানোর জন্য ‘ডিসঅ্যাপিয়ার’ অপশন বেছে নিতে পারেন গ্রাহকরা।
• এছাড়া নিজের তথ্য ডাউনলোড করে নিতে পারবেন গ্রাহকরা।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: