Big Story

ডাক পাচ্ছেন না ডাকশিল্পীরা ; উদ্বেগে কাটছে দিন

বড় ডাকের সাজ বানানোর সুযোগ পাচ্ছেন না ডাকশিল্পীরা

ইন্দ্রানী চক্রবর্ত্তী : করোনার প্রভাবে বিধস্ত হয়েছে বহু শিল্প এবং শিল্পীরা। সামনেই পুজো কিন্তু প্রতিমাশিল্পী থেকে শুরু করে আলোকশিল্পী ; এমনকি ডাকশিল্পীদের দীর্ঘশ্বাস স্পষ্ট। করোনার প্রথম ঢেউয়ের ধাক্কা সামলে ওঠা আগেই আবার উপস্থিত করোনার দ্বিতীয় ঢেউ এবং তৃতীয় ঢেউ-এর আতঙ্ক । আর সেই কারণে শিল্পীদের অবস্থার ক্রমশ অবনমন দুশ্চিন্তার ভাঁজ ফেলছে কপালে। ব্যতিক্রম ঘটেনি পুরুলিয়ার ডাকশিল্পীদের ক্ষেত্রেও; তাঁদের সারাবছরের মূল আয়ের উৎস হল পুজো। রাজ্য থেকে বিদেশ সর্বত্র ডাকশিল্পীদের হাতের কাজের সুখ্যাতি ছড়িয়ে। রাজ্যের বড়ো বড়ো বনেদি বাড়ির প্রতিমার জন্য বিশেষ ডাকের সাজ যেকোন থেকেই প্রস্তুত করা হয়।

করোনার পাশাপাশি জিনিসপত্রের দামের গ্রাফও উর্ধমুখী। খবরের কাগজ প্রতি কেজির দাম বেড়ে ৫০ টাকা। এছাড়াও আছে আয়না, চুমকি, টিকলি, অভ্র, আঠা প্রভৃতি দ্রব্যাদির খরচ। কার্যত , লাভের মুখ দেখার আশা তাঁদের নেই। প্রাক-পুজোকালীন সময় ডাকের সাজ থেকে তাঁদের যা উপার্জন হয় তা দিয়ে বছরের বাকি দিনগুলো ভালো ভাবে কেটে যায়। কিন্তু এবারে যা পরিস্থিতি , নতুন জামাকাপড় কেনার অর্থ পর্যন্ত জোগাড় করে উঠতে পারেনি তাঁরা।

আগের বছরের ন্যায় এবছর পুজোর আয়োজনে বেশ কিছু সীমাবদ্ধতা আছে । বাজেট থেকে শুরু করে পরিবর্তন হয়েছে বেশ কিছু চলতি নিয়মাবলীও। আর সেই কারণে বড় ডাকের সাজ বানানোর সুযোগ পাচ্ছেন না ডাকশিল্পীরা। ভবিষ্যত্‍ নিয়ে চিন্তিত তাঁরা । তবে যেহেতু রাজ্য সরকার তৎপরতার সাথে টিকাকরণ প্রক্রিয়া চালাচ্ছে , আশার আলো দেখছেন ডাকশিল্পীরা।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: