Culture

দূর্গা পুজোকে কেন্দ্র করেই কোয়েলের স্মৃতিতে ১৯৯৮ সালের সেই মধুর দিন

পুরোনো দিনের স্মৃতিচারণ টলি-অভিনেত্রী কোয়েলের

পল্লবী কুন্ডু : এবার সত্যিই এক অন্য পুজোয় মেতেছিলো সকল বাঙালি। মা আসলেও সকলের মনেই কোথাও যেন একটা অবসাদের ছাপ। এমন পুজো আগে কখনো দেখেননি কেউই, যেখানে মা-এর কাছে ছুটে যাওয়ার আগে দু-বার ভাবতে হয়েছে সন্তানদের। প্রতিবছর যেখানে জাঁক-জমক করে মায়ের আরাধনা করা হয় এবার সেখানে শুধুই নিয়ম সারা। নিজেদের প্রাণের ভয়ে বহু মানুষ মায়ের অষ্টমী অঞ্জলি দিতে যাওয়ার সাহস টুকু পাননি।

কলকাতা সহ গোটা বাংলার ছবিটাই এবারের ভিন্ন। তবে যাই হোক, হাজারো বাঁধার মধ্যে থেকেও সম্পন্ন হয়েছে মা-এর পুজো। তবে একদিকে সাধারণ মানুষ যখন গোটা শহরের জায়গায় সময় কাটানোর জন্য কেবল নিজের পাড়ার পুজোটাকেই বেছে নিয়েছে ঠিক তেমন ভাবেই সেলেবরাও এবার নিজেদের বাড়ির পুজোতেই খুঁজে নিয়েছিলেন পুজোর মজার রসদ। কলকাতার বনেদীবাড়ি পুজোর মধ্যে অন্যতম অভিনেতা রঞ্জিত মল্লিকের বাড়ির পুজো। মল্লিক বাড়ির পুজো ঘিরে প্রতি বছরই উন্মাদনা থাকে তুঙ্গে ।

সাধারণ থেকে অসাধারণ সকল প্রকার মানুষেরই ভিড় জমে এই পুজো দেখতে । কিন্তু এ বছর একেবারেই সে সব বন্ধ করে দেওয়া হয় । পুজোর আগেই রঞ্জিতকন্যা কোয়েল জানান, এ বছরের পুজো একেবারেই ঘরোয়া ভাবে সম্পন্ন হবে। সকলের স্বাস্থ্যের কথা বিবেচনা করে মিডিয়া বা সাধারণ মানুষদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। তাই এ বছরের পুজোয় বারবারই মনে পড়ে যাচ্ছিল অন্যান্য বছরের জাঁকজমকের কথা । আগে কত মজা হতো পুজোয় । ১৯৯৮ সালের পুরনো একটি ভিডিও শেয়ার করে কোয়েল সেই স্মৃতির পথ ধরেই হেঁটে গেলেন । সেই ভিডিওতে মল্লিক বাড়ির পুজোর কয়েক ঝলক দেখা গিয়েছে । সেখানেই দেখা গিয়েছে বাড়ির পুজোয় জমিয়ে নাচ্ছেন রঞ্জিত মল্লিক ।

তবে সব খারাপের মধ্যেও একটা ভালো থেকেই যায়। আর এক্ষেত্রে সেই ভালো হলো, কলকাতার আলো ঝলমলে চাক-চিক্কে ভরা পুজোর মধ্যে হারিয়ে যাওয়া ঘরের পুজোর সেই অনুভুমি আবারো মনে করিয়ে দিলো পুরোনো সেই দিনের কথা।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: