Education Opinion

“মুখ্যমন্ত্রী যেন পড়ুয়াদের ভবিষ্যৎ নিয়ে রাজনীতি না করেন”-ট্যুইটে মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা রাজ্যপালের

সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, নিতেই হবে চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা, তবে এই পরিস্থিতিতে এখন পরীক্ষা সম্ভব না সাফ জানাল মমতা বন্দোপাধ্যায়

দেবশ্রী কয়াল : পরীক্ষা হবে কী হবে না এই নিয়ে দোনোমোনো তে ছিল পড়ুয়ারা। ইতিমধ্যেই অনেক কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় কিন্তু ফলাফল প্রকাশ করে দিয়েছে। কিন্তু এরই মধ্যে ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট দিয়েছে নির্দেশ। পরীক্ষা ছাড়া উত্তীর্ন করানো যাবে না পড়ুয়াদের। আর এর পরেই কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা নিয়ে শনিবার মুখ্যমন্ত্রীকে ফের নিশানা করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। পড়ুয়াদের ভবিষ্যৎ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী কেন রাজনীতি করছেন সেই নিয়ে প্রশ্ন করে ট্যুইট করেন রাজ্যপাল। এদিন রাজ্যপাল ট্যুইট করে বলেন, “পরীক্ষা নিয়ে কেন রাজনীতি মুখ্যমন্ত্রীর। পরীক্ষা নিয়ে আসর গরম করছেন কেন? সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ ভাল করে পড়ুন। এখন তোষণের রাজনীতি করছেন মুখ্যমন্ত্রী। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশই আইন। তাই পড়ুয়াদের নিয়ে রাজনীতি করবেন না।”

গতকাল শুক্রবারই সুপ্রিম কোর্ট কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা না নেওয়ার আবেদনকে খারিজ করে দিয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের রায়ে স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা বিশ্ববিদ্যালয় গুলোকে নিতে হবে। তবে সে ক্ষেত্রে রাজ্যগুলি চাইলে ইউজিসির সঙ্গে কথা বলে পরীক্ষার সময়সীমা বাড়াতে পারে। এদিন সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের পরপরই তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবসের মঞ্চ থেকেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শিক্ষামন্ত্রীকে নির্দেশ দেন ফাইনাল পরীক্ষা কিভাবে নেওয়া সম্ভব তা নিয়ে তিনদিনের মধ্যেই উপাচার্যের সঙ্গে বৈঠক করে যেন নতুন পরিকল্পনা করা হয়। তবে সেপ্টেম্বর মাসে যে পরীক্ষা নেওয়া হবে না সে বিষয়েও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ইতিমধ্যেই স্পষ্ট করে দিয়েছেন শুক্রবারের টিএমসিপির মঞ্চ থেকেই।

করোনা আবহে পরিস্থিতিতে এরাজ্যে এখন পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয় বলেই প্রধানমন্ত্রীকে পরপর দুবার চিঠি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর কেবল তাই নয় পরীক্ষা নেওয়া নিয়ে ইউজিসি যে গাইডলাইন জারি করে সেই গাইডলাইন যাতে পুনর্বিবেচনা করা হয় সেই বিষয়ক প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে আবেদন জানান মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু গতকাল সুপ্রিম কোর্টের রায়ের প্রেক্ষিতে পরীক্ষা নিয়ে আবারও শুরু হয়েছে নতুন করে সমালোচনা, উঠছে অনেক প্রশ্ন। যদিও রাজ্যে প্রেসিডেন্সি, বিদ্যাসাগর, মৌলানা আবুল কালাম আজাদ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো বিশ্ববিদ্যালয়গুলি চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের ফলাফল ইতিমধ্যে প্রকাশ করে দিয়েছে। বেশিরভাগ বিভাগের ফলাফল প্রকাশ করে দিয়েছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ও। যদিও সুপ্রিম কোর্টের রায়ের প্রেক্ষিতে ওই চার বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের কোন সমস্যা হবে না বলেই দাবি করছেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের দিকে তাকিয়েছিল রাজ্যের বাকি বিশ্ববিদ্যালয়গুলি চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের ফলাফল প্রকাশের জন্য। তাই সেক্ষেত্রে এবার করোনা পরিস্থিতিতে কিভাবে পরীক্ষা হতে পারে সেই নিয়েই আগামী সপ্তাহে রাজ্য চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারে বলেই মিলছে খবর। কিন্তু এই সকল সিদ্ধান্তের আগেই আজ শনিবার রাজ্যপাল আবার মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা করে ট্যুইট করলেন। ফলে আবারও রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাতের তরজা বাড়ালো বলেই মনে করছেন অনেকে।

Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: