Big Story

হিমালয়ের কোলে মৃত্যু বরণ করল পাঁচ বাঙালি

"পই পই করে বলেছিলাম না যেতে কিন্তু শোনেনি সেই কথা"- সমিতা তিওয়ারি( তনুময় -এর মা)

তিয়াসা মিত্র : এজন এক দুঃস্বপ্ন প্রতি বাঙালির মনে। ট্রেকিং এর স্বপ্ন থাকেনা এরকম মানুষ খুব কম আছেন এই পৃথিবীতে কিন্তু এই ঘটনা কিছু কিছু ক্ষেত্রে কমিয়ে দেয় সেই অদম্য ইচ্ছা, এই পুজোতে এরকম পরিকল্পনা করে বেরিয়ে পরে কলকাতার এক দল যুবক। জানা যাচ্ছে তাদের মধ্যে বারুইপুরের বাসিন্দা ছিল রিচার্ড মন্ডল যার বিয়ের কথা ছিল মাস খানেক পরেই , তার বয়েস ছিল মাত্র ২৮ বছর। জানা যায় বন্ধুদের সাথে লামখাগা পাস্-এ ট্রেকিং করতে গিয়েছিলেন তিনি এবং দুর্যোগের পর থেকে তার সাথে কোনো রকম যোগাযোগ করতে পারেনি তাদের বাড়িরলোক, এই শনিবার তার দেহ উদ্ধার হয়ে হিমাচলপ্রদেশ এর সাংলা থেকে। পরিবার এর সদস্যরা যায় তারা দেহ শনাক্ত করেছে ভিডিও কল এর মাধ্যমে।

এর সাথে সাথে শোকের ছায়া পড়েছে কলকাতার হরিদেবপুর এলাকার তনুময় তিওয়ারির বাড়িতে, জানা যায় তনুময় তার মামা সুখেন মাঝির সাথে। জানা যায় সপ্তমীর দিন কাক ভোরে তারা সকলে পারি দেয় না এই সফরে তবে কে জানতো এটাই হবে তাদের কাছে না ফেরার সফর? একমাত্র ছেলেকে হারিয়ে সমিতা দেবী এক ভাবে বলে চলেছে -” পই পই করে বলেছিলাম না যেতে কিন্তু শোনেনি সেই কথা” শেষ কথা হয়ে চ্যাট এর মাধ্যমে যেখানে তনুময় তার মাকে চিন্তা করতে না করেছিল এবং বলেছিলো সে সাবধানে বাড়ি ফিরে আসবে এই সোমবার কিন্তু তা আর হলোনা।

পরিকল্পনা ছিল ট্রেকিং শেষ করে ২৩ শে অক্টোবর শিমলাতে থাকবে আর সব ঠিক থাকলে আগামীকাল মানে সোমবার ফিরে আসত কলকাতা। রিচার্ড মন্ডল ছিল অত্যন্ত মেধাবী একজন ছাত্র এবং মামা স্বরূপ বাগ যিনি পেশাগত ভাবে একজন শিক্ষক তিনি জানান রিচার্ড বছর দুয়েক আগে ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করে হায়েদ্রাবাদে একটি বেসরকারি সফটওয়্যার কোম্পানিতে চাকরি পায়ে, কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে সে ওয়ার্ক ফ্রম হোম করছিলো এবং এ বছর এই ট্রেকিং এর পরিকল্পনানর কথা বলেছিলো বাড়িতে তার সাথে তার বিয়েও ঠিক হয়ে যায় এই বছরের ডিসেম্বর মাসে।

অন্যদিকে, তনুময়- এর বাড়িতে ভিড় করে সব প্রতিবেশী এবং আত্মীয়স্বজন কারণ কারোর কাছে অজানা ছিল না মামা ভাগ্নের পাহাড়ের ওপর ভালোবাসার কথা তবে শুধু তাই নয় তার এর আগে সান্দাকফু ট্রেকিং করেছিলেন একইসাথে।

সব শেষে জানা যাচ্ছে, এরই মধ্যে রাজ্যসরকারের সাথে যোগাযোগ করেছে উত্তরাখণ্ডসরকার যাতে তাড়াতাড়ি মৃত বেক্তিদের রাজ্যে ফেরানোর উদ্ধোগ নেওয়া হয়ে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: