Women

গণধর্ষণ হয়েছেন গর্ভবতী স্ত্রী, সমাজের ভয়ে তাকে খুন করে নিজেও আত্মঘাতী হলেন স্বামী

১৫ অগাস্ট ধর্ষিতা স্ত্রীকে খুন করে নিজেও গলায় দরি দিয়ে আত্মহত্যা করেন ওই ব্যক্তি।

পল্লবী কুন্ডু : কখনোই কি সমাজের বদল ঘটবে না ? কখনোই কি মানুষ নিজের মানবিকতা বোধকে জাগিয়ে তুলবেন ? প্রত্যেকবার কেন মেয়েরা ধর্ষণের শিকার হবে ? আর এবার তো তিনটে প্রাণ-ই শেষ গেলো। স্ত্রী গর্ভবতী, সন্তানকে নিয়ে তাদের অনেক আশা। ভদ্রলোক হলেন হিসাররে শ্রমিক। ১৫ ই আগস্ট বাড়ির গ্রামের বাইরে যান তিনি। ঘরে ফিরতেই স্ত্রী কান্নায় ভেঙে পরে। স্বামীকে বলে সব কথা। তার এই জীবন সে আর রাখতে চায়না এ কথাও বলে।

আর তারপরেই সব শেষ। ১৫ অগাস্ট ধর্ষিতা স্ত্রীকে খুন করে নিজেও গলায় দরি দিয়ে আত্মহত্যা করেন ওই ব্যক্তি। শুধুমাত্র লিখে গিয়েছিলেন একটি সুইসাইড নোট।▪️সুইসাইড নোটে তিনি লিখে গিয়েছেন, ১৫ অগাস্ট গ্রামের বাইরে যান তিনি। রাতে ফিরে আসতেই স্ত্রী কান্নাকাটি করেন। জানান যে ২ নাবালক তাকে ধর্ষণ করেছে। পুলিশে অভিযোগ জানানোর কথা বলা হলে নির্যাতিতা নিজে জানান যে তিনি আর বাঁচতে চান না।

সন্তানসম্ভবা স্ত্রীকে ধর্ষণ করেছে ২ নাবালক। তাদের নাম, পরিচয় লিখে রেখে গিয়েছেন নির্যাতিতার স্বামী। কারণ তিনি চেয়েছেন অপরাধীদের উচিত্‍ শিক্ষা। নির্যাতিতার ভাই অভিযোগ দায়ের করেছেন বারওয়ালা থানায়। ৩০২, ৩০৬, ৩৭৬ডি ধারায় মামলা দায়ের হয়েছে। দিদির মৃত্যুর খবর শুনে তিনি আসেন। এবং সেখানেই সুইসাইড নোটটি মেলে। তার ভিত্তিতে এই অভিযোগ করেছেন তিনি।

৩টি প্রাণ শেষ হয়ে গেল, রয়েগেলো শুধুমাত্র অমানবিকতা এবং পাশবিকতার পরিচয়।

Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: