Nation

এবার চিনের পাল্টা অভিযোগের নিশানায় ভারত

ভারতীয় সেনাবাহিনীই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করেছিল, অভিযোগ উঠছে চৈনিক পক্ষ থেকে।

পল্লবী কুন্ডু : ইন্দো-চিন দ্বন্দ্বের এখনো সমাপ্তি ঘটেনি।উত্তপ্ত সীমারেখা। ভারতের তরফে অভিযোগ তোলা হয়েছিল, শনিবার রাতে প্যাংগং তাসো লেকের দক্ষিণ প্রান্তে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করেছিল চিনা সেনা। তাদের বাধা দেয় ভারতীয় সেনাবাহিনী। দুই দেশের মধ্যে কূটনৈতিক এবং সামরিক স্তরেও হওয়া সিদ্ধান্তের শর্তও চিন ভঙ্গ করেছে বলে অভিযোগ করে ভারত।আর এবার পাল্টাভাবে চিনের অভিযোগের নিশানায় ভারত।

ভারতীয় সেনাবাহিনীই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করেছিল, অভিযোগ উঠছে চৈনিক পক্ষ থেকে। লাদাখের প্যাংগং তাসো লেকের কাছে ভারত এবং চিনা সেনাদের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হওয়ায় এমনই দাবি করল নয়াদিল্লির চিনা দূতাবাস। একই সঙ্গে দাবি করা হয়েছে, সীমান্তে মোতায়েন করা নিজেদের বাহিনীকে যাতে সংযত করা হয়, সেই জন্য ভারতের কাছে অনুরোধও করেছে চিন।সূত্রের খবর অনুযায়ী, ভারতীয় সেনা জওয়ানরা বাধা দেওয়ায় দুই দেশের সেনাদের মধ্যে ধস্তাধস্তিও বেঁধে যায়।

তবে চিনা দূতাবাসের পক্ষ থেকে একটি বিবৃতি জারি করা হয় এবং তাতে বলা হয়েছে, ৩১ অগাস্ট প্যাংগং তাসো লেকের দক্ষিণ প্রান্তে এবং চিন-ভারত সীমান্তের পশ্চিম অংশে রেকিন পাসের কাছে নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে চিনা ভূখণ্ডে প্রবেশ করে উত্তেজনায় প্ররোচনা দেয়। দুই দেশ ঐক্যমতের ভিত্তিতে যে সিদ্ধান্তে পৌঁছেছিল, ভারতই তা ভঙ্গ করেছে বলে পাল্টা দাবি করেছে চিন। ভারতই শান্তি ভঙ্গের চেষ্টা করছে বলে গুরুতর অভিযোগ তোলা হয়েছে চিনা দূতাবাসের বিবৃতিতে। ভারতের এই আগ্রাসী মনোভাব দুই দেশের উদ্যোগে শুরু হওয়া শান্তি ফেরানোর প্রক্রিয়ার পরিপন্থী বলেও দাবি করেছে চিন।পাশাপাশি সীমান্ত উত্তেজনা বাড়াতে পারে এবং জটিলতা বৃদ্ধি করতে পারে, এমন কোনও পদক্ষেপ থেকে ভারতকে বিরত থাকার জন্যও ওই বিবৃতিতে দাবি করেছে চিনা দূতাবাস। পাশাপাশি ভারতীয় বাহিনীকে সংযত হওয়ারও পরামর্শ দিয়েছে তারা।

ইন্দো-চিন দ্বন্দ্বের জেরে এখনো উত্তপ্ত সীমারেখা। পরিস্থিতি শান্ত রাখার চেষ্টা করলেও তা সম্ভব হয়নি।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: