Sports Opinion

পঞ্চমবার চ্যাম্পিয়ন এর ট্রফি, মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের নামে

হার মানতে শেখেনি মুম্বই, বিধ্বংসী ক্যাপ্টেন রোহিত

দেবশ্রী কয়াল : আবারও একবার শিরোপার মুকুট নিজের নামে করল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স (Mumbai Indians)। এই নিয়ে পাঁচ বার তারা চ্যাম্পিয়ন এর ট্রফির অধিকারী হল। গতকাল আইপিএল (IPL) ২০২০ লীগ এর চূড়ান্ত ম্যাচে মুম্বই ইন্ডিয়ানস দিল্লি ক্যাপিটেলসকে পাঁচ উইকেটে হারায় এবং জয়লাভ করে। এদিন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের জয়ে এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকে পালন করেন ক্যাপ্টেন রোহিত শর্মা (Rohit Sharma)। ফাইনাল ম্যাচে ৫১ বলে ৬৮ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন তিনি। গতকাল তাঁর ইনিংস সাজানো ছিল পাঁচটি চার এবং চারটি ছক্কাতে।

এদিন ম্যাচে টস যেতে দিল্লি প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়। আর মাঠে নেমেই একদম প্রথমে মুখ থুবড়ে পড়ে দিল্লি ক্যাপিটেলস (Delhi Capitals)। বোলে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা মার্কাস স্টোইনিস রান না করে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান, প্রথম বলেই তিনি হন ক্যাচ আউট। এর পরে, তৃতীয় ওভারে দুটি রান করে আউট হন অজিঙ্ক্যা রাহানেও। ইনফর্ম ব্যাটসম্যান শিখার ধাওয়ানও ১২ বলে মাত্র ১৫ রান করে আউট হন। জয়ন্ত যাদবের বলে আউট হন তিনি। মাত্র ২২ রানে তিন উইকেট পড়ে যাওয়ার পরে চতুর্থ উইকেটের জন্য অধিনায়ক শ্রেয়াস আয়ার ও ঋষভ পান্তের গুরুত্বপূর্ণ ৯৯ রানের জুটি গড়েন। অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার ৫০ বলে অপরাজিত ৬৫ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলেন। অন্যদিকে, ঋষভ পান্ত ৩৮ বলে ৫৬ রান করেছিলেন। আইয়ার ছয়টি বাউন্ডারি এবং দুটি ছক্কা মারেন। একই সঙ্গে পান্থ চারটি এবং দুটি ছক্কা মারেন। তবে পান্ত আউট হওয়ার পরেই দিল্লির ইনিংস শেষ হয়ে যায় এবং ১৫ ওভারে ১১৮ রান সংগ্রহকারী দিল্লি ২০ ওভারে মাত্র ১৫৭ রান করতে পেরেছিল।

এদিকে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে দুর্দান্ত বোলিং করেছিলেন ট্রেন্ট বোল্ট। তিনি তার কোটার চার ওভারে ৩০ রানে তিন উইকেট নিয়েছিলেন। এটি ছাড়াও নাথান কুল্টার নাইল দুটি এবং জয়ন্ত যাদব একটি সাফল্য পান। তবে এই ম্যাচে একটিও উইকেট নিতে পারেননি মুম্বইয়ের ভরসাযোগ্য জাসপ্রিত বুমরাহ।

এদিন ১৫৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে, মুম্বই দুর্দান্ত শুরু করেছিল। কুইন্টন ডিকোক এবং অধিনায়ক রোহিত শর্মা প্রথম উইকেটে ৪.১ ওভারে ৪৫ রান তোলেন। ডিকোক ১২ বলে ২০ রান করেছিলেন। মার্কাস স্টোইনিস তাকে প্যালেভিয়ান প্রেরণ করেছিলেন। তার সংক্ষিপ্ত ইনিংসে ডিকক তিনটি বাউন্ডারি এবং একটি ছক্কা মারেন। এদিকে প্রথম উইকেট পড়ার পরে, দ্বিতীয় উইকেটের জন্য সূর্যকুমার যাদব এবং রোহিতের মধ্যেও ৪৫ রানের জুটি গড়েছিলেন। সূর্যকুমার ১৯ রান করে আউট হন। একই সময়ে, রোহিত ৫১ বলে ৬৮ রানের ম্যাচজয়ী ইনিংস খেলেন। এই ইনিংসে তিনি পাঁচটি চার এবং চারটি ছক্কা মারেন।

ক্যাপ্টেন রোহিত শর্মা

এরপরেই মাঠে কাইরান পোলার্ড ০৯ এবং হার্দিক পান্ডিয়া ০৩ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরেছিলেন। তবে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ইশান কিশান ১৯ বলে ৩৩ রান করে অপরাজিত ফিরে আসেন। এই ইনিংসে তিনি তিনটি চার এবং একটি ছক্কা হাঁকান। একদম শেষ মুহূর্তে মাত্র ১ রান যখন জিততে প্রয়োজন তখন মাঠে নাম ক্রুনাল পান্ডে, এবং থাকেন ইনিংসে অপরাজিত। তবে এদিন মুম্বইয়ের জয় নিশ্চিত করেছিলেন অধিনায়ক রোহিত শর্মা। কিন্তু বলতেই হয় তার পিছনে একটা বড় অবদান ছিল সূর্য কুমার যাদবের। নিজে রান আউট হয়ে তিনি, রোহিতকে মাঠে থাকতে দেন, এবং দলের জন্যে ছাড়েন মাঠ। সূর্যকুমার যাদবের এই সাহসিকতাতে এবং কাজে অনেকেই প্রশংসা করেছেন। ক্যাপ্টেন রোহিত ও স্বীকার করেছেন তাঁর অবদান। সব মিলিয়ে গতকাল একটা দুর্দান্ত দিন ছিল মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের জন্যে। এখন তো মনে হয় আইপিএলে জয়লাভ তাদের কাছে হ্যাবিট হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর প্রতি বছরেই তারা জিততে চায় চ্যাম্পিয়ন এর ট্রফি।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: