Big Story

অসাংবিধানিক অভিযোগে রাজ্যকে আবারো চিঠির রাজ্যপালের

" সংবিধানের ১৬৭ নম্বর ধারা অনুসারে রাজ্যপালকে অবহিত করা রাজ্যের বাধ্যতামূলক কাজ "- জগদ্বীপ ধনকর

তিয়াসা মিত্র : মঙ্গলবার বিধাসভাতে সাংবিধানিক বৈঠক এবং গতকালের রেড রোড প্রজাতন্ত্র দিবসের সরকারি মঞ্চে তাঁর সঙ্গে রাজ্য সরকারের দ্বন্দ্ব ফের সামনে এসেছে। এই আবহে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে লেখা চিঠি বৃহস্পতিবার সকালে নিজের টুইটারে প্রকাশ করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের। মঙ্গলবার লেখা ওই চিঠিতে রাজ্যপালের অভিযোগ, রাজ্যের কাছে নানা বিষয়ে তথ্য চেয়েও পাচ্ছেন না তিনি। ধনখড়ের দাবি, সংবিধানের ১৬৭ নম্বর ধারা অনুযায়ী এ বিষয়ে তাঁকে অবহিত করা রাজ্য সরকারের বাধ্যবাধকতার মধ্যে পড়ে।

সাম্প্রতিক কালে রাজ্যপাল অভিযোগ করেন রাজ্যের যে খরচ হচ্ছে অর্থাৎ যে প্রকল্প হচ্ছে বা অন্নান্ন যে খরচের নথি, তার বিষয়ে জনতা চাইছেন রাজভবন কিন্তু, কোনো কিছুই জানানো হচ্ছে না রাজ্যসরকার থেকে এরকম অভিযোগ এর আগেও উঠে এসেছে রাজ্যপালের কাছ থেকে। বিষয়টি নিয়ে আগেও রাজ্যকে চিঠি দিয়েছেন তিনি। এ বিষয়ে তাঁকে লেখা মুখ্যমন্ত্রীর ২২ জানুয়ারির একটি চিঠির প্রসঙ্গেরও উল্লেখ রয়েছে চিঠিতে। টুইটারে রাজ্যপাল লিখেছেন, ‘রাজ্যপালের চাওয়া তথ্য প্রদান করা রাজ্য সরকারের সাংবিধানিক দায়িত্ব। সরকার তাঁর কাছ থেকে কোনও তথ্যই আড়াল করতে পারে না, এবং এই ধরনের আচরণ হবে সংবিধান লঙ্ঘন। যা উপেক্ষা করা যাবে না।’

মঙ্গলবারে বিধান সভার সামনে যে সাংবিধানিক বৈঠক হয় সেখানে তিনি এই বিষয়ে গুলি তুলে ধরেছেন। রাজ্য রাজ্যপালের দ্বন্ধ যে কতখানি তা আবারো সেইদিন জন সমক্ষে প্রমাণিত হয়েছে, কিন্তু সেই বিষয়কে এন্ড্রো করে তার পরো মুহূর্তের সাক্ষাৎকারে স্পিকের বিমান বন্দোপাধ্যায় বলেছে, ” এইগুলি কোনটি সত্যি নয়” তাই , কোনটি সত্যি কোনটি মিথ্যে তা বোঝা ভার। এই আবহে বুধবার রেড রোডের অনুষ্ঠানে রাজ্যপাল এসে মুখ্যমন্ত্রীর মুখোমুখি হয়েছিলেন। তিনি নমস্কার জানালে মুখ্যমন্ত্রীও প্রতি নমস্কার জানান। তবে রাজ্যপালের প্রতি বিশেষ মনোযোগী বলে মনে হয়নি তাঁকে। মুখ্যমন্ত্রীর দিকে ঝুঁকে রাজ্যপালকে কিছু বলতে দেখা যায়। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীকে সেই সময়েও ‘উদাসীন’ দেখিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীকে দেখা যায় রাজ্যপালের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে অন্য পাশে দাঁড়ানো বিধানসভার স্পিকারকে কাছে ডেকে বসতে বলতে।

Show More

OpinionTimes

Bangla news online portal.

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: