West Bengal

লালবাজারের পুলিশ কর্তার মৃত্যুকে ঘিরে উঠছে নানান প্রশ্ন

লালবাজারের পুলিশ কর্তার মৃত্যুর ঘটনায় প্রশ্ন উঠছে রাজ্যের করোনা টেস্ট পরিষেবা নিয়ে।

পল্লবী কুন্ডু : করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে লালবাজারের এক পুলিশ কর্তার। আর তারপর থেকেই হাজারো প্রশ্ন উঠছে রাজ্যের বিরুদ্ধে। লালবাজার সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী জানা গিয়েছে, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে আক্রান্ত হয়েই শুক্রবার মারা গিয়েছেন কলকাতা পুলিশের লালবাজারের ইকুইপমেন্ট সেকশনে ইন্সপেক্টর ইন চার্জ অভিজ্ঞান মুখোপাধ্যায় নামে ওই পুলিশ আধিকারিক। বৃহস্পতিবার রাতে ফের শ্বাসকষ্ট শুরু হয় অভিজ্ঞানবাবুর। রাতেই তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে। শুক্রবার সকাল ৮টা নাগাদ সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। রাজ্যের বিরুদ্ধে করোনা টেস্ট নিয়েই প্রশ্ন উঠছে। এবং টেস্টের গাফিলতিতেই মৃত্যু হয়ে এই পুলিশ আধিকারিকের বলে মনে করছেন চিকিৎসকেরাও।

জানা গিয়েছে, বেশ কিছুদিন ধরেই শারীরিক ভাবে অসুস্থ ছিলেন তিনি। অসুস্থতার কারনেই তাঁকে দু-দুবার করোনা টেস্ট করানো হয়েছিল। কিন্তু কোনওবারই পজিটিভ রিপোর্ট আসেনি। তার জেরে না তিনি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন না কোনও চিকিত্‍সা শুরু করিয়েছিলেন।তাহলে টেস্টের গাফিলতির কারণেই এমন অবস্থা। এর দায় এবার কে নেবে ?

তবে টেস্টের এই যে পরিষেবার যে গাফিলতি তা শুধুমাত্র যে সরকারি সংস্থার তা নয়। বেসরকারি সংস্থার বিরুদ্ধেও এমন দাবিই উঠেছে একবার নয় বারংবার। এর আগেও একাধিকবার দেখা দিয়েছে সরকারি ও বেসরকারি সংস্থাতে টেস্ট করালে তার রিপোর্ট সব সময় সঠিক আসছে না। রিপোর্ট নেগেটিভ আসায় ওই সব মানুষদের চিকিত্‍সাও শুরু হচ্ছে না, তাঁদের মাধ্যমে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার ঘটনাও ঠেকিয়ে রাখা যাচ্ছে না। কিন্তু পরিস্থিতির বাড়াবাড়ি হলে বা মারা গেলে তখন দেখা যাচ্ছে সেই মানুষটি পজিটিভ ছিলেন। তাহলে এটি কি সংস্থার গাফিলতি নাকি কিটের ভুল। যাই হোক ভুল তো হচ্ছেই। আর এর খেসারত চোকাতে সাধারণ মানুষকেই।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: