West Bengal

কেন্দ্র যাই বলুক না কেন রাজ্যে লকডাউন হবেই তা প্রত্যাহার করা যাবে না, সাফ জানালেন মমতা

"রাজ্যের উপর কেন্দ্র সিদ্ধান্ত চাপাতে পারে না, রাজ্যকে বিশ্বাস করতে হবে"- স্পষ্ট মন্তব্য মুখ্যমন্ত্রীর

দেবশ্রী কয়াল : লকডাউন কী হবে সেই নিয়ে প্রশ্ন বহু। এখনও অনেক মানুষ বুঝতেই পারছেন না রাজ্যে পূর্ব ঘোষিত লকডাউনের কী হবে ! কারন কেন্দ্র জানিয়েছে কন্টেইনমেন্ট জোন ছাড়া কোনো রাজ্যই, রাজ্যের বাকি জায়গায় লকডাউন করতে গেলে নিতে হবে তাঁদের কেন্দ্রের অনুমতি। গত ১লা সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়েছে আনলক- ৪। সেখানে নতুন গাইডলাইন জারি করেছে কেন্দ্র সরকার। নির্দেশিকাতে লকডাউন নিয়ে জারি হয়েছে নতুন নির্দেশিকা, আর তা নিয়ে আবারও স্পষ্ট মন্তব্য করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়।

কেন্দ্রের অনুমতি ছাড়া লকডাউন করা যাবে না এই বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই বেশ কিছু রাজ্য জানিয়েছে ক্ষোভ। তার মধ্যে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ ও। যদিও রাজ্য সরকার গত সোমবার অর্থাৎ ৩১শে আগস্ট লকডাউনের দিন এক বিজ্ঞপ্তি দিয়ে কেন্দ্র সরকারকে জানিয়ে দিয়েছে লকডাউন হবে আগামী ৭, ১১ ও ১২ তারিখ বাংলায়, পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী। এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই কথা বলার সাথে সাথে জানিয়েছেন কেন এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন তিনি।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় বুধবার নবান্নে এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, ” লকডাউন সংক্রান্ত চিঠি এসেছে, কেন্দ্রের সঙ্গে আলোচনা করেই নাকি এখন থেকে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এটা নিয়ে সমস্যা তৈরি হয়েছিল। তবে সেটা এখন সলভ করে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া যেহেতু নির্দেশিকা আসর আগেই লকডাউনের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছিল তাই ৭,১১,১২ তারিখ লকডাউন হবেই। আর এটাই রাজ্যের সর্ব শেষ সিদ্ধান্ত, এবং রাজ্য সেই সিদ্ধান্তে অনড় থাকবে। কনটেইনমেন্ট জোন নিয়ে রাজ্য ও স্থানীয় প্রশাসন সিদ্ধান্ত নেয়। কোনওভাবেই লকডাউন প্রত্যাহার করা হবে না বলেই সাফ জানিয়ে দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আরও বলেন, “গণতান্ত্রিক পরিকাঠামোতে কেন্দ্র সরকার রাজ্যের অভিভাবক। প্রত্যেক রাজ্য তার কাছে সন্তানসম। কিন্তু এখানে তো কেবল প্রতিযোগিতামূলক আচরণ করা হচ্ছে। গাইডলাইন প্রকাশের মাধ্যমে পরামর্শ দেওয়া কেন্দ্রের কাজ, রাজ্য গুলির উপর সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়া কিন্তু কেন্দ্রের কাজ নয়। রাজ্যের উপর কেন্দ্রকে ভরসা রাখতে হবে।”এছাড়াও মমতা বন্দোপাধ্যায় বলেন, কেন্দ্রকে রাজ্যকে বিশ্বাস করতে হবে। কারণ মাঠে নেমে কাজটা রাজ্য সরকার করে থাকে।” মুখ্যমন্ত্রীর এদিন এর এই বক্তব্যে স্পষ্ট যে , রাজ্যে সার্বিক সাপ্তাহিক লকডাউন চালু থাকবে আগামী দিনেও। তবে বেশ কিছু জেলায় যে আবার টানা লকডাউন আনার দাবি উঠেছিল সংক্রমণ ঠেকানোর জন্য সেটা হবে না আর। এছাড়া এই লকডাউনের পরে রাজ্য নতুন করে কী সিদ্ধান্ত নয় তাই দেখার পালা।

Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: