West Bengal

একদিকে রাজ্য জুড়ে কড়া লকডাউন, অন্যদিকে একের পর এক যাত্রীবাহী ট্রেন ঢুকলো হাওড়ায় : চরমে যাত্রী দুর্গতি

লকডাউনের মধ্যেই সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত হাওড়ায় প্রবেশ করলো বেশ কয়েকটি দূরপাল্লার ট্রেন, রাজ্য জুড়ে লকডাউন থাকায় চূড়ান্ত দুর্ভোগে পড়তে হলো যাত্রীদের।

পল্লবী কুন্ডু : গোটা রাজ্য জুড়ে আজ লকডাউন। চলতি সপ্তাহের আজ প্রথম দিনের লকডাউন। কলকাতা জুড়ে চলছে কড়া নজরে তদারকি। সামান্য শিথিলতা আনতে দেবেনা প্রশাসন। মোড়ে মোড়ে ব্যারিকেড, আর দফায় দফায় চলছে মাইকিং। কিন্তু এসবের মধ্যেও সমস্যা নিজের জায়গা ছাড়লনা। লকডাউনের মধ্যেই সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত হাওড়ায় প্রবেশ করলো বেশ কয়েকটি দূরপাল্লার ট্রেন। কিন্তু এদিকে রাজ্য জুড়ে লকডাউন থাকায় চূড়ান্ত দুর্ভোগে পড়তে হলো সেই যাত্রীদের। বন্ধ গণপরিবহন, তাহলে এবার কি উপায় বাড়ি ফিরবেন নাকি আজকের গোটা দিনটা রাস্তাতেই কাটাতে হবে তাদের ?

সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ হাওড়া স্টেশনের আট নম্বর প্ল্যাটফর্মে ঢোকে নয়াদিল্লি-হাওড়া এসি স্পেশাল ট্রেন। সেই ট্রেনের যাত্রীদের জন্য রাজ্য সরকারের তরফে বেশ কিছু বাসের ব্যবস্থা করা হয়েছিল ঠিকই। কিন্তু যাত্রী সংখ্যার তুলনায় তা ছিল অতি সামান্য। মুর্শিদাবাদ, নদিয়া-সহ দূরের জেলাগুলির কয়েকশ মানুষকে প্রায় আড়াই ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকতে হয় গাড়ির জন্য। বেলা একটা নাগাদ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। তার কিছুক্ষন পরেই পুনরায় কয়েকটি ট্রেন ঢোকে স্টেশনে। এবং তারপরেই ধীরে ধীরে জটিল হতে থাকে পরিস্থিতি। বাসে নিজেদের জায়গা করার জন্য রীতিমত মার-মার, কাট-কাট অবস্থা। আর যদি দূরতবিধির কথাই বলেন তবে তা চুলোয় উঠেছে।

পরিস্থিতি সামাল দিতে কার্যত হিমশিম খেতে হয় কর্তব্যরত পুলিশকর্মীদের। যেহেতু প্রাইভেট গাড়ি গুলিকেও তেমনভাবে উপযুক্ত কারণ ছাড়া ছাড় দেওয়া হয়নি তাই জন্যই কারোর পরিবারের লোকও আসতে পারেনি। তার সাথে সাথে ট্যাক্সি কি ক্যাব-উবের-ওলা সমস্ত কিছুই বন্ধ তাই বেশ দুর্ভোগের মধ্যে পড়তে হয় আজ যাত্রীদের। এক্ষেত্রে যে প্রশ্নটি উঠে আসছে তা হল, তবে কি রেল আর রাজ্যের মধ্যে কোনো বোঝাবোঝি নেই ? যদি থাকতোই তবে যাত্রীদের আজ এই অসুবিধার মধ্যে পড়তে হতোনা।

Show More

Related Articles

Back to top button
%d bloggers like this: