West Bengal

লোকডাউনের সকালে কলকাতার বুকে উদ্ধার ২১ জন নাবালক

কলকাতা শহরের বুকেই চলছে নাবালক পাচার চক্র, লকডাউনের সকালে কলকাতা থেকে ২১জন নাবালককে উদ্ধার করে পুলিশ।

পল্লবী কুন্ডু : ছোটবেলা দুস্টুমি করলে বাড়ির বড়োরা বলতেন ছেলে ধরাদের কাছে ধরিয়ে দেব অথবা দুপুর বেলা বাড়ির বাইরে বেরোলে ভয় দেখিয়ে বলতেন যে বাইরে বেরোলেই ছেলে ধরা ধরে নিয়ে যাবে। তবে আজকের দিনে দাঁড়িয়ে সেই কথা গুলো যে সত্যি হয়ে যাবে তা কে জানতো। কলকাতা শহরের বুকেই চলছে নাবালক পাচার চক্র। লকডাউনের সকালে কলকাতা থেকে ২১জন নাবালককে উদ্ধার করে পুলিশ। একই সঙ্গে তাদের সঙ্গে থাকা তিনজন যুবককেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

সূত্রে জানা গিয়েছে, নাবালকেরা সকলেই বিহারের সমস্তিপুরের বাসিন্দা। এদের বয়স ১৫ বছর থেকে ১৭ বছরের মধ্যে। উদ্ধার হওয়া ওই নাবালকদের কাছ থেকে পুলিশ জানতে পেরেছে যে। তাদের সকলেরই খুব করুন অবস্থা। বাড়ির এই অবস্থায় তাদের দুবেলা দুমুঠো খাবার জুটতো না। প্রত্যেককে টাকার পাশাপাশি ভাল খাবারের প্রলোভন দেখানো হয়েছে। এদের বলা হয়েছে কলকাতার বিভিন্ন চায়ের দোকানে কাজের বন্দোবস্ত করে দেওয়া হবে।

তবে আসল বিষয়টা খুব সহজেই অনুধাবন করতে পেরেছে পুলিশ চায়ের দোকানে কাজ দেওয়ার কথা বাহানা মাত্র। শুধু এই বাহানা দিয়ে এতগুলো ছেলেকে নিয়ে যায় না। তাই পুলিশের সন্দেহ এদের পাচার করার ছক নিয়েই এখানে আনা হচ্ছিল। পুলিশের কাছে গোপন সূত্রে খবর এসেছিল যে বিহার থেকে দূরপাল্লার বাসে করে একদল নাবালককে পাচার করা হচ্ছে কলকাতায়। সেখান থেকে আবার তাঁদের দেশের বিভিন্ন শহরে পাচার করে দেওয়া হবে। সেই খবর পেতেই রবিবার রাত থেকেই বাবুঘাটে ঘাঁটি গেড়েছিল কলকাতা পুইশের একটি বাহিনী।

সোমবার সকালে নির্দিষ্ট সেই বাস ঢুকতেই পুলিশ ওই ২১জন নাবালক ও তাদের সঙ্গে থাকা ৩জন যুবককে আটক করে। এই ৩ জন হল মহম্মদ এহসান(২২), মহম্মদ আফজাল(২৮) ও মহম্মদ চাঁদ(২৩)। আফজালই এই পাচার চক্র চালায়। এই তিনজনকে ও নাবালকদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশের ধারনা এই চক্রের পিছনে বড় কোনও মাথা কাজ করছে।সম্ভবত এই ২১জন নাবালককেও সেই টোপ দিয়েই পাচার করা হচ্ছিল।অপরাধ বিশেষজ্ঞদের ধারনা, যৌন ব্যবসার জন্যই সম্ভবত এদের পাচার করার ছক কষা হচ্ছিল। কারন এখন মধ্য প্রাচ্যে এই সব নাবালকদের চাহিদা খুব বেড়ে গিয়েছে যৌন ব্যবসার জন্য। এদের সম্ভবত বাংলাদেশ নিয়ে গিয়ে সেখান থেকে মধ্য প্রাচ্যের দেশে পাচারের ছক কষা হচ্ছিল। তাদের লক্ষ্যই হচ্ছে পেট ভরে দুইবেলা খাবার জোটে না এমন বাড়ির ছেলেদের লহাবার আর কাজের টোপ দিয়ে পাচার করা।

Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: