Women

খুন না আত্মহত্যা, ছাত্রীর ঝুলন্ত মৃতদেহ নিয়ে মানিকচকে বেঁধেছে রহস্য

জাগছে বহু প্রশ্ন, পলাতক অভিযুক্ত প্রেমিক

দেবশ্রী কয়াল : ছাত্রীর ঝুলন্ত মৃতদেহকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ালো মালদা জেলার সদর মহকুমার মানিকচক এলাকায়। পুরো বিষয়টিই হয়ে রয়েছে ধোঁয়াশার মতন। মৃত ছাত্রীর নাম, কাবেরী মন্ডল, যাঁর বয়েস হয়েছিল সবে মাত্র ১৮ বছর। কাবেরী মানিকচক কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী। বাড়ি মানিকচকের নাজিরপুর অঞ্চলের হরিপুরে। আজ বুধবার সকালে গ্রামের পাশেই একটি আম গাছে তাঁর ঝুলন্ত দেহ দেখতে পায় গ্রামবাসীরা। আর তার পর থেকেই এলাকায় ছড়িয়েছে চাঞ্চল্য।

এদিকে মৃত কাবেরীর মাথায় সিঁদুর দেখা যায় বলে, নানারকম সন্দেহের দানা বেঁধেছে ইতিমধ্যেই। কাবেরীর বাড়ির লোকজনের অভিযোগ, তাঁকে ধর্ষণ করে খুন করে আম গাছে টাঙিয়ে দেওয়া হয়েছে। আর সেই অভিযোগের তীর ওই গ্রামেরই যুবক অমিত মন্ডলের দিকে।

জানা গিয়েছে, কাবেরীর সঙ্গে অমিতের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। তাঁদের সেই সম্পর্ক প্রায় দেড় বছরের। তাঁরা বিয়েও করতে চেয়েছিল। তাঁদের এই সম্পর্ক কাবেরীর বাড়ির লোকজন মেনে নিলেও তাতে মত ছিল না অমিতের বাবা-মায়ের। তাঁরা এই সম্পর্ক মেনে নিতে পারেননি বলে জানা গিয়েছে।

সূত্রের খবর, গতকাল ছিল কাবেরীর জন্মদিন। মা-বাবার বারণ সত্ত্বেও বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে জন্মদিন পালন করবে বলে বাড়ি থেকে বের হয় কাবেরী, কিন্তু আর বাড়ি ফেরা হয়নি কাবেরীর। রাতে হয়তো পাশের গ্রামের মাসির বাড়িতে আছে বলে নিশ্চিন্ত ছিলেন কাবেরীর বাড়ির লোকজন। কিন্তু পরের দিন সকালেই মেলে তাঁর ঝুলন্ত মৃতদেহ। কাবেরির মাথার সিঁদুর দেখে গ্রামবাসীদের অনুমান হয়তো গতকাল রাতে অমিত ও কাবেরী বিয়ে করে।

কিন্তু তারপর কি ঘটনা ঘটে সেটাই হয়ে গিয়েছে রহস্য। তবে ঘটনার চাউর হওয়ার পর থেকেই অভিযুক্ত অমিত নিরুদ্দেশ। তবে এটি খুন না আত্মহত্যা তা নিয়ে ধন্দে মানিকচক থানার পুলিশ। ইতিমধ্যেই চলছে এই ঘটনার তদন্ত। দেহ পাঠানো হয়েছে ময়না তদন্তের জন্যে।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: