West Bengal

হাথরাস ধর্ষণকাণ্ডের তীব্র নিন্দা করলেন মমতা, নাম না নিয়েই আক্রমন যোগী সরকারকে

ঘটনা বড়ই নৃশংস ও ন্যক্কারজনক, প্রাশাসনের ভূমিকা নিয়েও কার্যত সমালোচনা করলেন মমতা বন্দোপাধ্যায়

দেবশ্রী কয়াল : উত্তরপ্রদেশের হাথরাস এর ঘটনায় সারা দেশ জানাচ্ছে তীব্র প্রতিবাদ। এবারে এই ঘটনায় মুখ খুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। এই নৃশংস গণধর্ষণকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানালেন তিনি। আর তারই পাশাপাশি নাম না করে, বিজেপি ও যোগী আদিত্যনাথকে কার্যত তুলোধনা করলেন মমতা। নিজের টুইট্যার হ্যান্ডেলের মাধ্যমেই তিনি জানান এর প্রতিবাদ।

আজ বৃহস্পতিবার মমতা ব্যানার্জি তার টুইট্যার হ্যান্ডেলে লেখেন, ‘উত্তরপ্রদেশের হাথরাসে দলিত তরুণীর উপর নৃশংস ও ন্যক্কারজনক ঘটনার নিন্দা করার মতো ভাষা আমার কাছে নেই। পরিবারটির প্রতি জানাই আমার সমবেদনা।’ একইসঙ্গে কার্যত জোর করে তরুণীর দেহ সত্‍কারের সমালোচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী। এরপর নাম না করেই বিজেপির তুমুল সমালোচনা করেন মমতা। লেখেন, ‘কিছু মানুষ আছে যাঁরা, ভোটের পাওয়ার জন্য মানুষকে মিথ্যা প্রতিশ্রুতি আর স্লোগান দেয়। পরিবারের অনুমতি ছাড়াই কার্যত জোর করে তরুণীর দেহ সত্‍কারের ঘটনা তাদের স্বরূপ প্রকাশ্যে নিয়ে এসেছে।’

গত ১৪ই সেপ্টেম্বর উত্তরপ্রদেশের হাথরাস জেলার ওই দলিত তরুণী গণধর্ষণ এবং নৃশংসতার শিকার হন। দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে দু’সপ্তাহ ধরে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করার পরে মঙ্গলবার সকালে তাঁর মৃত্যু হয়। প্রথমে রাট ১০টা বেজে ১০টা নাগাদ পুলিশে আড়ালেই তাঁর দেহ নিয়ে বেরিয়ে যেতে চায় এরপর মৃতার পরিবার বাইরে ধর্ণা দেয়, পরে হাথরস গ্রামে নিয়ে গেলে পুলিশ কার্যত পরিবারের উপর জোর করতে থাকে যে ওই রাতেই দেহ পোড়ানো হবে। তবে তাঁর পরিবার চেয়েছিল সকল বিধি নিয়মের সাথে পরেরদিন সকালেই মেয়ের সৎকারের কার্য সম্পন্ন করবে। কিন্তু পুলিশ তা কিছতেই মানতেই রাজি ছিল না। এরপর রাত ৩টে নাগাদ মৃতের পরিবার ও আত্মীয়দের তালাবন্দি করে মৃতার বাবাকে গাড়ি তুলে সোজা পৌঁছায় শ্মশানে আর সেখানেই পুড়িয়ে ফেলা হয় তাঁকে। এমনকি তাঁকে বাড়িতে শেষবারের জন্যে নিয়ে যাওয়ার যে আবেদন পুলিশের কাছে তার পরিবার করেছিল, তাও শোনেনি পুলিশ। এছাড়া একটি ভিডিওতে দেখা যায় পুলিশ নির্যাতিতার পরিবারকে বলছে এই ঘটনায় নাকি তাদেরও দোষ ছিল।

তবে হাথরাসের পুলিশের তরফে ট্যুইট করে শেষকৃত্যের এই ঘটনাকে অস্বীকার করেছে। পুলিশের দাবি, মৃতার পরিবারের ইচ্ছানুসারেই নাকি শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়েছে। এই ঘটনায় উত্তরপ্রদেশ পুলিশ-প্রশাসনের তীব্র নিন্দা করেছেন বিরোধীরা। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের পদত্যাগ চেয়েছেন তাঁরা। এদিকে বাংলার আইনশৃঙ্খলা নিয়ে তৃণমূল সরকারকে বারবার আক্রমণ করেছে বিজেপি। এবার পালটা গেরুয়া শিবিরকে তুলোধনা করলেন মমতা। নাম না করেই দল ও যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: