Uncategorized

প্রথমে প্রেমিকার গলায় ছুরি তারপর আত্মহননের চেষ্টা

দুজনের সম্পর্ক, কিন্তু মেনে নেয়নি পরিবার, সেই কারণেই এরূপ কাজ নাকি এর মধ্যে অন্য কোনো উদ্দেশ্য, তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

পল্লবী কুন্ডু : দুজনের সম্পর্ক, কিন্তু মেনে নেয়নি পরিবার। ঘটনা পূর্ব মেদিনীপুরের মহিষাদলে (Medinipur Mahishadal)। ১৭ বছরের কিশোরীর সঙ্গে প্রতিবেশী গ্রাম কুম্ভচকের অসীম ঝুলকি নামে এক যুবকের সম্পর্ক তৈরি হয়েছিল বছর খানেক ধরে। তবে সেই সম্পর্ক মেনে নেয়নি কিশোরীর পরিবার। আর বাড়ির অমতে যেতে চায়নি ওই কিশোরীও। সে কথা সে জানিয়েছিল ওই যুবককে। আর তাতেই হয় বিপত্তি। গতকাল সন্ধ্যায় টিশন থেকে বাড়ির ফেরার পর কিশোরী পরিবারকে জানায় অসীম জোর করে তার ফোন কেড়ে নিয়েছে। তবে তারপরেই কিশোরীর বাড়ির ফোনে ফোন করে অসীম এবং মোবাইল ফেরত নিয়ে যেতে বলে। অসীমের ফোন পেয়ে মোবাইল আনতে যায় কিশোরী। তখনই সুযোগ বুঝে তার গলায় ছুরি চালিয়ে দেয় অসীম।

তারপর নিজের গলাতেও ছুরি বসায় ওই কিশোর। রক্তাক্ত অবস্থায় ততক্ষণে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে ওই কিশোরী। তারপর গুরুতর জখম অবস্থায় অসীমই গিয়ে কিশোরীর বাড়ির লোককে সব কথা জানায়। এরপর দু’জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তমলুক জেলা সদর হাসপাতালে চিকিত্‍সাধীন রয়েছে তারা। গোটা ঘটনায় কিশোরীর পরিবার অসীমকেই দায়ী করেছে।

যদিও যুবকের পরিবারের পাল্টা অভিযোগ, কর্মসূত্রে ভিন রাজ্যে থাকে তাদের ছেলে। লকডাউনে বাড়ি এসেছিল সে। শুক্রবার কাজের জায়গায় ফেরার কথা ছিল তার। সেই অনুযায়ী কাটা ছিল প্লেনের টিকিট। মাঝে বছর খানেক ধরে ওই কিশোরীর সঙ্গে সম্পর্ক থাকলেও মেয়ের বাড়ি থেকে বারবার অসীমকে বলা হয়েছিল সে যেন কিশোরীর সঙ্গে সম্পর্ক না রাখে। এমনকি কিশোরী নিজেও নাকি অসীমের বাড়ি গিয়ে একথাই বলেছে। এমনটাই দাবি করেছে আহত যুবকের পরিবার। তারা এও জানিয়েছে যে দীর্ঘদিন অসীমের সঙ্গে ওই কিশোরীর কোনও সম্পর্ক ছিল না। আর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কিশোরীই ফোন করে অসীমকে ডেকে পাঠিয়েছিল।

গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। কিশোরী এবং যুবক সুস্থ হলে তাদের বয়ান নেবেন তদন্তকারীরা। তারপর খতিয়ে দেখা হবে যে কে এমন ঘটনার জন্য প্রকৃত ভাবে দায়ী আর কেনই বা এমন কাণ্ড ঘটল এবং তারপরেই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: