narendra modiNation

নির্বাচনের আগেই মেট্রো প্রকল্পের কাজ শেষ করার সময়সীমা বেঁধে দিলেন মোদী

বাংলার উন্নয়নে আগ্রহী নাকি বিধানসভা নির্বাচনের আগের কৌশল

মধুরিমা সেনগুপ্ত: এই একুশেই আর কিছুদিন পর রয়েছে বিধানসভা নির্বাচন। আর তার আগেই কলকাতার একাধিক মেট্রো প্রকল্পের কাজ শেষ করার সময় বেঁধে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কলকাতাবাসী এই মেট্রোর ধীরগতির কাজ নিয়ে অনেকদিন ভুগছে। এর আগে ইস্ট- ওয়েস্ট মেট্রোর কাজ শেষ হলেও অনেকবছর ধরেই জোকা-মোমিনপুর মেট্রো নিয়ে সমস্যায় আছে জনগণ। কলকাতা ও তার আশেপাশের অঞ্চলগুলির অবস্থা নিজে খতিয়ে দেখে প্রধানমন্ত্রী এই নির্দেশ দিয়েছেন। সূত্রানুযায়ী নোয়াপাড়া থেকে কলকাতা বিমানবন্দর পর্যন্ত যে মেট্রো প্রকল্প চলছে তার কাজ ২০২২ সালের মার্চ মাসের মধ্যে শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

এছাড়াও ২০২৫ সালের মধ্যে বিমানবন্দর থেকে নিউ ব্যারাকপুর পর্যন্ত যে মেট্রো লাইনের কাজ হচ্ছে তা শেষ করার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। নিউ ব্যারাকপুর থেকে বারাসত পর্যন্ত মেট্রো প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ জমির জট মিটিয়ে নেয়ার কথাও বলেছেন তিনি। জমির জট কাটানোর পরই মেট্রো লাইন পাতার কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। নোয়াপাড়া থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত মেট্রো রেলের যে প্রথম দফার কাজ চলছে তা লকডাউনের মধ্যেও গতি থামায়নি এবং সেই অগ্রগতি খতিয়ে দেখেই ২০২২ সালের ৩১ মার্চের মধ্যে কাজটি শেষ করার জন্য রেলমন্ত্রককে নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর। প্রথম দফার কাজের শেষে বিমানবন্দর থেকে নিউ ব্যারাকপুর পর্যন্ত দ্বিতীয় দফার কাজ নিয়ে যে জটিলতার সৃষ্টি হয়েছিল তা দেড় বছর আগেই মিটে গেছে। বিমানবন্দর কতৃপক্ষের জমির নিচ দিয়েই মেট্রোর লাইন পাতা হবে বলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ হয়েছে। তাই দ্বিতীয় দফার কাজ শেষ করার জন্য ২০২৫ সালের ৩১ শে ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়সীমা বেঁধে দেয়া হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

সূত্রের খবর চলতি বছরই মার্চ মাসে নোয়াপাড়া-দক্ষিণেশ্বর রুটে মেট্রো চলাচল শুরু হয়ে যাবে এবং ইতিমধ্যে তার প্রস্তুতি পুরোদমে শুরু হয়ে গিয়েছে। তবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী থাকবেন কিনা সে বিষয়ে এখনো পরিষ্কার কিছু জানা যায়নি। কিছুদিন আগেই উজবেকিস্তানের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর নিজের বক্তব্য রাখার সময় তাঁর পিছনের পর্দায় ফুটে উঠেছিলো দক্ষিণেশ্বর মন্দিরের ছবি। তা থেকে স্পষ্টত বোঝাই যাচ্ছে এই নোয়াপাড়া-দক্ষিনেশ্বর প্রকল্প নিয়ে যথেষ্ট উত্‍সাহী কেন্দ্র। এখন এটাই ভাবনার বিষয় যে এই উৎসাহ কি শুধুই বিধানসভা নির্বাচনের আগে কোলকাতাবাসীদের মনজয়ের চেষ্টা নাকি সত্যিই কেন্দ্র বাংলার উন্নয়ন নিয়ে আগ্রহী।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: