Education Opinion

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের জন্যে বিজ্ঞপ্তি হয়েছে জারি, আগামীকাল থেকেই শুরু প্রক্রিয়া

পূরণ হবে ১৬ হাজার শূন্য পদ, সকল রকম প্রস্তুতি নিচ্ছে শিক্ষা পর্ষদ

দেবশ্রী কয়াল : সামনেই বিধানসভার ভোট, আর তার আগেই বাংলাতে নিজের জায়গা বজায় রাখতে,মরিয়া বর্তমান শাসক দল। আর তাই ভোটের আগে আগেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী (Mamata Banerjee) ঘোষণা করেছিলেন রাজ্যে শূন্য পদগুলিতে শিক্ষক নিয়োগের কথা। আর সেই মতোই কিন্তু রাজ্যে আবার নিয়োগ হতে চলেছে প্রাথমিক শিক্ষক (Primary Teachers)। মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা মাফিক প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি সোমবার রাতে জারি করল রাজ্য প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ।

এই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে নয়া নিয়োগ প্রক্রিয়ার জন্য ২০১৪ সালের টেট (Teacher Eligibility Test)উত্তীর্ণ প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত প্রার্থীরাই কেবল আবেদন করতে পারবেন। আগামীকাল বুধবার থেকেই শুরু হচ্ছে আবেদন জমা নেওয়ার এই প্রক্রিয়া। বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এই পুরো প্রক্রিয়াটিই হবে অনলাইনে। আগামী ১লা ডিসেম্বর পর্যন্ত আবেদন জমা নেওয়ার প্রক্রিয়া চলবে। পর্ষদ বিজ্ঞপ্তিতে এও জানিয়েছে যে সমস্ত প্রার্থীরা চূড়ান্ত বর্ষের প্রশিক্ষণ হওয়ার জন্য পরীক্ষা দিয়েছেন তারাও ন্যাশনাল কাউন্সিল ফর টিচার এডুকেশন এর নিয়ম অনুযায়ী আবেদন করতে পারবেন। বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষা পর্ষদ জানিয়েছে ২০১৪ সালে যে সমস্ত প্রার্থীদের টেট উত্তীর্ণ এবং প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত হয়ে রয়েছেন তাদের নথি যাচাই করা হবে।

অনলাইনে আবেদনের জন্য প্রার্থীরা প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের ওয়েবসাইট http://www.wbbpe.org এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন। মূলত কিছু পদ্ধতি অনুসরণ করার কথা বলা হয়েছে টেট উত্তীর্ণ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রার্থীদের এই নিয়োগ প্রক্রিয়ার জন্য।

১) প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের দেওয়া ওয়েবসাইটের পোর্টালে প্রবেশ করতে হবে ইচ্ছুক প্রার্থীদের

২) এরপর ওই লিংকে ক্লিক করতে হবে।

৩) ২০১৪ সালের টেট এর রোল নাম্বার এবং জন্মতারিখ দিতে হবে।

৪) পর্ষদের তরফে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে এই নির্দেশাবলী অনুসরণ করেই ফর্ম পূরণ করতে হবে ইচ্ছুক প্রার্থীদের।

আগামিকাল অর্থাত্‍ ২৫শে নভেম্বর বুধবার থেকে আগামী ১লা ডিসেম্বর পর্যন্ত এই আবেদন প্রক্রিয়া জমা নেওয়া হবে বলেই পর্ষদের তরফে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

জানা যাচ্ছে মোট সাড়ে ২২ হাজারের মতো প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত টেট উত্তীর্ণ প্রার্থী আছে। যারা গত ২০১৪ সালে টেট পাশ করে বসে রয়েছেন। এই প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত টেট উত্তীর্ণদের মধ্যে থেকেই প্রাথমিক শিক্ষকের সাড়ে ১৬ হাজার শূন্য পদ পূরণ করা হবে। তবে শুধু ডিএলএড প্রশিক্ষণ নয় যাদের বিএড প্রশিক্ষণ রয়েছে তারাও প্রাথমিকের এই নিয়োগের জন্য আবেদন করতে পারবেন সেক্ষেত্রে অবশ্যই টেট উত্তীর্ণ হতে হবে।

ওপরদিকে নতুন করে প্রাথমিকের টেট- ও খুব শীঘ্রই নেওয়া হতে পারে বলে জানা যাচ্ছে। ইতিমধ্যেই প্রায় আড়াই লক্ষ আবেদন জমা পড়ে আছে নয়া টেট পরীক্ষার জন্য। তারও প্রস্তুতি অনেকটাই এগিয়ে গেছে বলেই পর্ষদ সূত্রে খবর। তবে প্রাথমিকভাবে এই নিয়োগ প্রক্রিয়ায় শেষ করার দিকে এখন বেশি করে গুরুত্ব দিচ্ছে রাজ্য স্কুল শিক্ষা দপ্তর ও প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: