Education Opinion

বিক্ষোভ করলে অভিভাবকদের দেওয়া হচ্ছে হুমকি, টাকা না দিলে হবে না পড়াশোনা

অমানবিক বেহালা ওরিয়েন্ট ডে স্কুল, বাচ্চাদের ভবিষ্যৎ নষ্ট করার দিচ্ছে ইঙ্গিত

দেবশ্রী কয়াল : বেসরকারি স্কুলে ফি বাড়ানোর দাবিতে এখনও অনড় বেশ কিছু স্কুল। কোনও ভাবেই তারা ফি কমাতে রাজি নয়। এদিকে স্কুল শিক্ষা দফতরের এক নির্দেশিকায় স্পষ্টত বলে দেওয়া হয়েছে, এই লকডাউনে এখন বেসরকারি স্কুল গুলি কেবল টিউশনি ফি নেবে, বাকি কোনো ফি এর দাবি করা যাবে না। এছাড়া কেউ যদি দিতে দেরি করে, বা সমস্যায় পড়েন তাহলে স্কুলকে মানবিক হতে হবে, কারোর উপর জরিমানা করা যাবে না। কিন্তু এ কী, কলকাতার আরও এক বেসরকারি ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল দিল অমানবিকতার পরিচয়।

আজ শুক্রবার সকাল থেকে ফি বাড়ানোর প্রতিবাদে বেহালা ওরিয়েন্ট ডে স্কুলের সামনে অভিভাবকদের বিক্ষোভ শুরু হয়। তবে বেহালা ওরিয়েন্ট ডে নামের এই স্কুল, শুক্রবার বিক্ষোভ শুরু করতেই অভিভাবকদের রীতিমত দিয়ে দেয় হুমকি।

এদিন বেহালা ওরিয়েন্ট ডে স্কুলের সামনে শুক্রবার অভিভাবকদের সকাল থেকে বিক্ষোভ শুরু হয়। ফি কমানোর দাবিতে অভিভাবকদের বক্তব্য, ” স্কুল থেকে অভিভাবকদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। যদি তাঁরা আন্দোলন বিক্ষোভ দেখান তাহলে সেক্ষেত্রে কিন্তু, তাদের বাচ্চারা টার্গেট হয়ে যাবে’। ”

এখানেই শেষ নয়, এমনকি অভিভাবকদের স্কুল থেকে বলা হয় যে, ‘আপনারা রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি করলে, সে ক্ষেত্রে চিকিত্‍সার জন্য সব টাকা খরচ করতে হয়। অতএব স্কুলেও ঠিক তাই টাকা-পয়সা দিতে হবে। যদি তেমন না করতে পারেন তাহলে বাচ্চার পড়াশোনা বন্ধ করে দিন, যান গিয়ে সরকারি স্কুলে পড়ান’। অভিভাবকরা বিরোধিতা করলে স্কুল থেকে বলা হয়, ” প্রয়োজনে বাড়ির জিনিসপত্র বিক্রি করে ফি জমা করুন। না হলে বাচ্চাদেরকে স্কুলে পড়াশোনা করতে দেওয়া হবে না। ” এই সব বিষয়কে ঘিরেই স্কুলের সামনে ব্যাপক উত্তেজনা অভিভাবকদের।

বেহালা ওরিয়েন্ট ডে স্কুলের অভিভাবকদের প্রশ্ন করা হলে, তাঁরা বলেন, ‘এই লকডাউন পরিস্থিতিতে তাঁদের পক্ষে বর্ধিত ফিস দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না, কিন্তু স্কুল কর্তৃপক্ষ তাদের সঙ্গে কোনও রকম সাহায্য করছে না।’ যখন বারবার করে স্কুল গুলিকে বলা হচ্ছে মানুষের প্রতি সংবেদনশীল হতে, মানবিক হতে ততই তারা যেন অমানবিক আচার করছে। এই কঠিন পরিস্থিতিতে যদি স্কুল এমন ব্যবহার করতে পারে, ছাত্রদের ভবিষ্যৎ নিয়ে খেলা করার মত ইঙ্গিত দিতে পারে, তাহলে ভবিষ্যৎ দিনে কী হতে চেলেছে ? রাজ্য সরকারের তরফে বলা হয়েছে এই সময় যদি কোনো স্কুল, স্কুল শিক্ষা দফতরের নির্দেশিকা অমান্য করে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। এখন দেখার বিষয় সরকার এই ঘটনায় কী পদক্ষেপ নেয়।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: