Big Story

ভারতের ছেলে আজ ইউক্রেনের যুদ্ধতে ! উচ্চতার কমতিতে চাকরি পাননি ভারতীয় সেনায়

দ্বাদশ পাশ করার পর ভারতীয় সেনায় যোগ দিতে গিয়েছিলেন রবি, কিন্তু তাঁর কম উচ্চতার জন্য বাতিল হয়ে যান। দু’বারই একই ঘটনা ঘটে তাঁর সঙ্গে, এর পরই আমেরিকার বাহিনীতে যোগ দেওয়ার প্রস্তুতি নেন

তিয়াসা মিত্র : দেশকে রক্ষা করে তার স্বপ্ন ছিল এবং সেই স্বপ্ন নিয়ে যোগ দিতে গেছিলো ভারতীয় সেনা দলে। তামিলনাড়ুর কোয়েম্বত্তূরের যুবক সৈনিকেশ রবিচন্দ্রন -এর কাহিনী এক নজির সৃষ্টি করেছে। ঘটনাচক্রে তাকে প্রত্যাখ্যান করে ভারতীয় সেনা। এর পরই ২০১৮-তে ইউক্রেনের খারকিভে পাড়ি দেন রবি।

খারকিভে ন্যাশনাল অ্যারোস্পেস ইউনিভার্সিটিতে পড়াশোনা শুরু করেন। এ বছরের জুলাইয়ে সেই কোর্স শেষ হওয়ার কথা। ইউক্রেনে অ্যারোস্পেস নিয়ে পড়তে গেলেও সেনা হওয়ার সুপ্ত বাসনা থেকেই গিয়েছিল রবির মনে। আর সেই সুযোগটাও এসে গেল ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে। নিজের দেশের হয়ে শত্রুপক্ষের বিরুদ্ধে বন্দুক তুলে নিতে পারেননি ঠিকই, কিন্তু যখন তিনি দেখলেন ইউক্রেনে আধাসেনায় লোক নিচ্ছে, বিশেষ করে এই যুদ্ধ পরিস্থিতিতে, রবি আর নিজেকে গুটিয়ে রাখতে পারেননি। জর্জিয়ান ন্যাশনাল লিজিয়ঁ-র আধাসেনার ইউনিটে নাম লেখান।

যুদ্ধ লাগার খবর পেয়ে রবির বাড়ির লোক তার সাথে যোগ করার চেষ্টা করেন, প্রথমে যোগাযোগ না হলেও পরে যোগাযোগ সম্ভব হয় এবং তাকে বাড়ি চলে আসার কথা বলে, কিন্তু রবি সবাইকে চমকে দিয়ে জানান ” আমার পক্ষে বাড়ি আশা সম্ভব নয়, আমি ইউক্রেনে সেনা দলে যোগদান করেছি” এই খবরে বাড়ির সকলে উদ্বিঘ্ন হয়ে তাকে চলে আসার কথা জানাতে থাকে ,কিন্তু সে নাছোড়বান্দা।

রবির এক বন্ধু জানিয়েছেন, দ্বাদশ পাশ করার পর ভারতীয় সেনায় যোগ দিতে গিয়েছিলেন রবি। কিন্তু তাঁর কম উচ্চতার জন্য বাতিল হয়ে যান। দু’বারই একই ঘটনা ঘটে তাঁর সঙ্গে। এর পরই আমেরিকার বাহিনীতে যোগ দেওয়ার প্রস্তুতি নেন। চেন্নাইয়ে আমেরিকার দূতাবাসে গিয়ে খোঁজখবর নেন, তিনি কি সে দেশের বাহিনীতে যোগ দেওয়ার যোগ্য। কিন্তু সেই আশাও নিভে যাওয়ায় অ্যারোস্পেস নিয়ে পড়াশোনার জন্য ইউক্রনে পাড়ি দেন ২০১৮-তে। খারকিভে বিশ্ববিদ্যালয়ের হস্টেলে থেকেই পড়াশোনা করছেন।

২০২১-এর জুলাইয়ে শেষ বার বাড়িতে এসেছিলেন রবি। মাস দেড়েক বাড়িতে কাটিয়ে ফের খারকিভে ফিরে যান। রবির এক বন্ধু জানান, মাসখানেক আগে বাড়িতে ফোন করেছিলেন রবি। তখন জানিয়েছিলেন যে, একটি ভিডিয়ো গেম তৈরির সংস্থায় পার্টটাইম কাজ করছেন। তাঁর কথায়, “কিন্তু ইউক্রেনে যুদ্ধ শুরু হওয়ার চার দিনের মধ্যেই রবির সঙ্গে আর যোগাযোগ করতে পারেনি পরিবার। তার পরই সংবাদমাধ্যমে খবর পাই যে রবি ইউক্রেনের বাহিনীতে যোগ দিয়েছে। এই ঘটনায় আমরা সকলেই স্তম্ভিত।”

Show More

OpinionTimes

Bangla news online portal.

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: