Nation

দিতে হবে মুখ্যমন্ত্রীর পদ, দাবি না মানলে দেখা করবেন না সোনিয়া-রাহুলের সাথে

পরিস্থিতি হয়েছে আরও জটিল, কংগ্রেসে শচীন পাইলটের জায়গা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন

দেবশ্রী কয়াল : বানাতে হবে তাঁকে রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী, নাহলে ফিরবেন না কংগ্রেসে, এমনটাই সাফ জানিয়ে দিলেন শচীন পাইলট। তাঁর বক্তব্য আগামী ১ বছরের মধ্যে তাঁকে রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রীর পদ দিতে হবে, নাহলে কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধী বা রাহুল গান্ধী কারোর সাথেই তিনি দেখা করবেন না, আর এই সিদ্ধান্তে তিনি অনড়। কিছু দিন আগে রাহুল গান্ধী বলেন কংগ্রেসের জন্য শচীন পাইলটের দরজা খোলা। তিনি চাইলেই কথা বলতে পারেন। কিন্তু কংগ্রেসের কোনো শীর্ষ নেতার সাথে যোগাযোগে নেই শচীন পাইলট। তবে একমাত্র, কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক পূর্ব উত্তরপ্রদেশের দায়িত্বে থাকা প্রিয়ঙ্কা গান্ধীর সাথেই যোগাযোগে রয়েছেন তিনি।

জানা যাচ্ছে, এই মুহূর্তে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর মাধ্যমেই নিজের বার্তা সোনিয়া গান্ধী এবং রাহুল গান্ধীর কাছে পাঠাচ্ছেন বিদ্রোহী কংগ্রেস নেতা শচীন পাইলট। যখনই শচীনকে রাজস্থানের উপমুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে তারপর থেকেই এই পরিস্থিতি হয়েছে আরও জটিল। এরপর থেকেই ঘনিষ্ট সূত্রের মাধ্যমে জানা যাচ্ছে, শচীন পাইলট চাইছেন সাংবাদিক বৈঠক করে কংগ্রেস শীর্ষনেতৃত্ব ঘোষণা করুক যে তাঁকে রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী করা হবে। একমাত্র তখনই তিনি সনিয়া ও রাহুল গান্ধীর সঙ্গে দেখা করবেন। অন্যথা কিন্তু নয়। শচীনের কথায় এই মুহূর্তে তিনি কংগ্রেসকে বিশ্বাস করতে পারছে না।

পাইলটের অভিযোগ, একদিকে তাঁকে বলা হচ্ছে কংগ্রেসের তরফে যে তার জন্য দরজা খোলা রয়েছে, কিন্তু তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে রাজস্থানের উপমুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে এর উপরে তার বিধায়কের পদ নিয়েও উঠছে প্রশ্ন। তাঁর বক্তব্য, রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট তাঁর নামে মিথ্যে কথা বলেছে। গান্ধী পরিবারের কাছে তাঁর ভাবমূর্তি নষ্ট করছে। আর তারই জেরে ইতিমধ্যে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন শচীন পাইলট ও তাঁর ১৮ বিধায়ক। তবে তাঁর এই পদক্ষেপের পর, দল তাঁর বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ হতে পরেই বলে হচ্ছে আশঙ্কা। এরপর দলে তিনি আর সত্যিই ফিরে আসতে পারবেন কিনা সেই নিয়েও কিন্তু জাগছে প্রশ্ন, হচ্ছে সমালোচনা। এই পদক্ষেপের পর, ঘটনায় নতুন কী মোড় আস্তে চলেছে তাই কিন্তু এখন দেখার বিষয়।

Tags
Show More

Related Articles

Back to top button
Close
Close
%d bloggers like this: