Entertainment

চির বিদায় নিলেন গায়ক-অভিনেতা শক্তি ঠাকুর

বড় মেয়ে মেহুলি গোস্বামী ঠাকুর সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন, ম্যাসিভ হার্ট অ্যাটাকে মাত্র দু'ঘণ্টার মধ্যে মৃত্যু হয় তাঁর।

পল্লবী কুন্ডু : পরলোক গমন করলেন গায়ক-অভিনেতা শক্তি ঠাকুর। এহ জগৎ থেকে চিরতরে বিদায় নিলেন তিনি।মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৮। দীর্ঘদিন ধরেই শক্তিবাবু বার্ধক্যজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন।বড় মেয়ে মেহুলি গোস্বামী ঠাকুর সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন, ম্যাসিভ হার্ট অ্যাটাকে মাত্র দু’ঘণ্টার মধ্যে মৃত্যু হয় তাঁর।সোমবার ভোরে শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়েছে।

বাংলা ও হিন্দি গানের জগতে উজ্জ্বল নাম তাঁর ছোট মেয়ে মোনালি ঠাকুর। একাধিক বাংলা সিনেমায় অভিনয়ের পাশাপশি প্লেব্যাকও করেছিলেন শক্তি ঠাকুর। উত্‍পল দত্ত, বিকাশ রায়ের মতো স্বনামধন্য অভিনেতাদের সঙ্গে কাজ করেছিলেন তিনি।বাবার মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছেন মেহুলি। ফেসবুক পেজে তাঁর ছাপ স্পষ্ট, ”আমার বাবা…. আর নেই… নেই. ম্যাসিভ কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট…..কয়েক ঘন্টার মধ্যেই চলে গেল…. আমার বাবা….. কিচ্ছু করতে পারলাম না……”।

এই মানুষটির যদি জীবনের ফেলে আসা দিন গুলির দিকে তাকানো যায় তবে, প্রথম জীবনে শক্তি ঠাকুর ছিলেন স্কুল শিক্ষক। অঙ্ক ছিল তাঁর প্রিয় বিষয়। ১৯৭৬-এ তপন সিংহের ‘হারমোনিয়াম’ ছবিতে নেপথ্য শিল্পী হিসেবে গানের দুনিয়ায় প্রথম পা রাখেন তিনি। তারপর আর তাঁকে ফিরে তাকাতে হয়নি। হেমন্ত মুখোপাধ্যায় শক্তি ঠাকুরকে দিয়ে তাঁর সুর করা বেশ কিছু বাংলা ছবিতে গান গাইয়েছেন। পাশপাশি, তিনি অভিনয় করেছেন তরুণ মজুমদারের ‘দাদার কীর্তি’, ভালবাসা ভালবাসা ছবিতে। এই ছবিতে অভিনয়ের সঙ্গে কোরাসে গলাও মেলান। এ ছাড়াও শক্তি ঠাকুর গান গেয়েছেন, অজয় দাস, আর ডি বর্মনের সুরে।

বাবার শেষকৃত্যর পর মেহুল জানান, ”আমি তো ভুলেই গিয়েছিলাম যে বাবা মায়েরা একদিন চলে যায়, জীবনে কোনোদিনও শ্মশানে আসিনি। আজ সবই জীবনে প্রথম বার। বাবা ছাড়া আজ থেকে নতুন জীবন। তুমি কি কোনোদিনও কোনো পাপ করোনি বাবা? নইলে এভাবে দু’ঘন্টার মধ্যে কে চলে যায়? “ধুর আর ভাল্লাগছেনা” বলে চলে গেলে সব কিছুতেই তাড়াহুড়োর জন্য কত বকাবকি করতাম।আজ চলে যাওয়ার সময়ও এমন অদ্ভুত তাড়াহুড়ো কে করে বাবা? আমি তো তোমার কার্বন কপি আমিও তোমারি মত তাড়াহুড়ো করে চলে যাব দেখো।কষ্টটা লিখে ফেলতে পারলে বোধহয় নিঃশ্বাস নিতে পারতাম।”

মেয়ের বুকে রয়ে গেলো বাবার চলে যাওয়ার বিস্বাদের সুর।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: