West Bengal

দুর্গা পূজার পর বাড়তে পারে করোনার প্রকোপ, ট্যুইটে আশঙ্কা প্রকাশ সূর্যকান্ত মিশ্রের

"শারদীয়া উৎসব যেন কারোর জন্যে শোকের কারন না হয়ে ওঠে, রাজ্য সরকারকে শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব নিতে হবে" - সূর্যকান্ত মিশ্র

দেবশ্রী কয়াল : আর মাত্র কয়েকদিন বাকি, তারপরেই ঢাকে পড়ে যাবে কাঠি। এই বছর দুর্গা পূজা অন্য বছরের তুলনায় একটু আলাদা হবে, করোনার প্রকোপের জেরে। কিন্তু পূজার আগে কেনাকাটা করতে গিয়ে যেভাবে মানুষের ভিড় দেখা হচ্ছে তাতে ইতিমধ্যেই চিন্তার মধ্যে রয়েছে চিকিৎসা মহল। আশঙ্কা হচ্ছে এই দুর্গা পূজার পর করোনা আরও ভয়ঙ্কর রূপ নিতে চলেছে। আর এবারে চিকিৎসকদের এই সতর্কবার্তাকে সমর্থন জানিয়ে সিপিএম রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রও এই একই আশঙ্কার প্রকাশ করেছেন।

সূর্যকান্ত মিশ্র ট্যুইট করে জানিয়েছেন, চিকিত্‍সকদের পক্ষ থেকে এই সময়পোযোগী সতর্কবার্তাকে সম্পূর্ণ সমর্থন করি। ‘এই শারদোত্‍সব যেন কারোর শোকের কারণ না হয়ে ওঠে। রাজ্য সরকারকে শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব নিতে হবে।’ রাজ্যে প্রতিদিনই বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। চলতি মাসের ১১ দিনে প্রায় ৩৮ হাজার মানুষ করোনাই আক্রান্ত হয়েছে।

ইতিমধ্যেই হাসপাতালে রোগীর তুলনায় বেডের অভাব রয়েছে, আর তারই মধ্যে যদি উত্‍সবের পর সংক্রমণ অস্বাভাবিক হারে বেড়ে যায় তাহলে কিন্তু পরিস্থিতি কেমন ভাবে সামাল দেওয়া হবে তা নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন চিকিত্‍সক এবং জন স্বাস্থ্য বিভাগের কর্তারা। বর্তমান পরিস্থিতিকে দেখে উদ্বিগ্ন হয়ে সে নিয়ে সতর্ক করে প্রশাসনকে বারবার চিঠি দিয়েছেন চিকিত্‍সকরা। আর চিকিত্‍সকদের সতর্কবার্তাকে গুরুত্ব দিয়ে সূর্যকান্ত মিশ্র এদিন ট্যুইট করেন।

স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী বর্তমানে করোনা আক্রান্ত হয়ে এই মুহূর্তে চিকিত্‍সাধীন ব্যক্তির সংখ্যা ৩০ হাজারের মতো। সেখানে গোটা রাজ্যে মোট করোনা চিকিত্‍সার শয্যা সংখ্যা ১২,৭১৫। অর্থাত্‍ ইতিমধ্যেই হাসপাতালের বেডের একটা বড় ঘাটতির দেখা মিলছে। এরপর যদি উত্‍সবে মেতে আরও মানুষ আক্রান্ত হাপিয়ে পড়েন তখন কিন্তু সেই পরিস্থিতি আরও কঠিন হয়ে দাঁড়াবে এবং তা সামাল দিতেও রীতিমত নাজেহাল হতে হবে চিকিৎসকদের।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: