Nation

১৪ বছর আগে এই একই ভূমিকায় ছিলেন তিনি, তাই সর্বদা পাশে থাকার আশ্বাস অনশনরত কৃষকদের

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে তৃণমূলের পাঁচ সাংসদের একটি দল আজ আবার পৌঁছে গেল রাজধানী দিল্লির সিঙ্ঘু সীমান্তে বিক্ষুব্ধ, অনশনরত কৃষকদের সঙ্গে দেখা করতে

পল্লবী কুন্ডু : আন্দোলনরত কৃষকদের পাশে সর্বদা থাকার আশ্বাস বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ে(Mamata Banerjee)র নির্দেশে তৃণমূলের পাঁচ সাংসদের একটি দল আজ আবার পৌঁছে গেল রাজধানী দিল্লির সিঙ্ঘু সীমান্তে বিক্ষুব্ধ, অনশনরত কৃষকদের সঙ্গে দেখা করতে। দলটিতে রয়েছেন ডেরেক ও’ব্রায়েন, শতাব্দী রায়, প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রতিমা মণ্ডল এবং মহম্মদ নাদিমূল হক। সূত্রের খবর সেখানে কৃষকদের সঙ্গে বেশ কিছুবার কথা বলেছেন এই তৃণমূল সাংসদরা।

কৃষক, আন্দোলন এবং অনশন এই শব্দ গুলির সাথে শারীরিক এবং মানসিক উভয় ভাবেই ওতোপ্রোত ভাবে জড়িত মমতা বন্দ্যোধ্যায়। অতীতের পাতা গুলো একটু উল্টে দেখলে, ১৪ বছর আগে মমতা বন্দ্যোধ্যায় সিঙ্গুরের কৃষকদের জমি ফেরতের দাবিতে আন্দোলনে বসেছিলেন। ২৬ দিন টানা অনশন করেন। ২০১৬ সালে সুপ্রিম কোর্ট তাঁর অবস্থানকে স্বীকৃতি দেয়। তাই আন্দোলনের পাশে তিনি আছেন সর্বদা, এ বার্তাই দেন তিনি।
ডেরেক ওব্রায়েন-এর সূত্রে এর আগে কৃষক আন্দোলনকারী পরমজিত্‍ সিংয়ের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছিলেন তিনি। মমতা ট্যুইট করে সে সময়েই জানান, কৃষকদের সঙ্গে কথা না বলেই এই বিল পাশ করা হয়েছে। কৃষকদের যে কোনও মূল্যে পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তিনি।

আর এবারেও কৃষকদের প্রতিনিধিদের একটি দলের সঙ্গে এক সাংসদের ফোন থেকে কথা বলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। কথার মাধ্যমে তাঁদের পাশে থাকার আশ্বাসও দিয়েছেন। জানা যাচ্ছে, কৃষকরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সশরীরে উপস্থিতি চাইছেন ওই আন্দোলন মঞ্চে। চাইছেন, নয়া কৃষিবিল প্রত্যাহারের দাবিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পূর্ণ সমর্থন। তবে কি নির্বাচনের আগেই দিল্লি সফর সারবেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী ? জাগছে প্রশ্ন।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: