West Bengal

সাধারণের সাথে মিশে যথারীতি লাইন দিয়ে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড সংগ্রহ করলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী

প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া মেনে, লাইনে দাঁড়িয়ে আজ মঙ্গলবার ৭৩ নম্বর ওয়ার্ডের কেন্দ্র থেকে কার্ড সংগ্রহ করলেন মমতা ব্যানার্জি

পল্লবী কুন্ডু : সাধারণের সাথে থেকে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড সংগ্রহ করলেন খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee)। আজ মঙ্গলবার তাদের সাথে একই লাইনে দাঁড়িয়ে কার্ড নিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। সোমবারই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জানিয়েছিলেন নিজের নামে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নেবেন। আর হাতে-কলমে সে কাজ সেরেও ফেললেন তিনি। এদিন সকালে সাড়ে ১১টা নাগাদ হরিশ মুখার্জি স্ট্রিটের জয়হিন্দ ভবনে উপস্থিত হন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা, মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়, পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম-সহ দলের একাধিক নেতা-কর্মীরা।

এদিন, ৭৩ নম্বর ওয়ার্ডের এই স্বাস্থ্যসাথী কার্ড বিতরণ কেন্দ্রে এক সাধারণ মানুষের মতো সেই লাইনে গিয়ে দাঁড়িয়ে পড়েন মুখ্যমন্ত্রী। একজন সাধারণের ভূমিকায় থাকার পাশাপাশি তিনি তার মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্বও পালন করেন। লাইনে দাঁড়িয়ে বাকি সবাই ঠিক মতো পরিষেবা পাচ্ছেন কিনা, সেই বিষয়টিও নিজে দেখা শোনা করেন। এরপর কার্ড নেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া, যেমন ছবি তোলা, থাম্ব ইমপ্রেশন দেওয়া ইত্যাদি যা যা করার সেই সমস্ত কিছু করে ককেন্দ্র থেকে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড সংগ্রহ করেন।

স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্প ইতিমধ্যেই গোটা রাজ্য জুড়ে জোর কদমে কাজ সারছে। সরকারি তথ্য যা বলছে তাতে, রাজ্যের সাড়ে সাত কোটিরও বেশি মানুষ এখনই স্বাস্থ্যসাথী পরিষেবার আওতায় এসেছেন। স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের সঙ্গে যুক্ত আধিকারিকদের বক্তব্য, রাজ্যের প্রতিটি পরিবারকে বছরে পাঁচ লক্ষ টাকার বিমার আওতায় আনা হয়েছে। রাজ্যের যে কোনও বেসরকারি হাসপাতালে ক্যাশলেস চিকিত্‍সা করানোর সুযোগ মিলবে। পরিবারের সকলেই, এমনকী মহিলা সদস্যের বাপেরবাড়ি ও শ্বশুরবাড়ির সব সদস্যই এর আওতায় আসবেন।রাজ্যের সকলেই যাতে এই প্রকল্পের আওতায় আসতে পারে তার জন্য আবেদন পদ্ধতি আরো সহজ করা হয়েছে। জানা যাচ্ছে, কেন্দ্রে না গিয়ে অনলাইনেও ফর্ম ফিলাপ করে স্মার্টকার্ড পাওয়া সম্ভব।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: