mamata banerjeeWest Bengal

প্রথম দফা র “দুয়ারে সরকার” সাফল্যের শিখরে, টুইট মমতা বন্দোপাধ্যায়ের

পিছিয়ে পড়া মানুষজনের সমস্যার দ্রুত সমাধান, কর্মসূচি শেষ হবার ১৫ দিন আগেই টার্গেট পূরণে রেকর্ড গড়ে চলেছে রাজ্য সরকারের এই কর্মসূচি

পৃথা কাঞ্জিলাল : ” দুয়ারে সরকার” কর্মসূচি শেষ হতে এখনও দিন ১৫ বাকি। কিন্তু তার আগেই টার্গেট পূরণে রেকর্ড গড়ে চলেছে রাজ্য সরকারের এই নয়া কর্মসূচি। শুক্রবার টুইট করে আবারো সেই সাফল্যের কথা জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় নিজেই। টুইটে তিনি লিখলেন, ‘১ মাসেরও কম সময়ে, রাজ্যের তফসিলি, আদিবাসী এবং অন্যান্য অনগ্রসর সম্প্রদায়ভুক্ত মানুষদের মধ্যে ১০ লক্ষেরও বেশি SC/ST/OBC সার্টিফিকেট বিতরণ করা হয়েছে।’ এরপর তিনি কর্মসূচির সঙ্গে যুক্ত সকল মানুষকে আন্তরিক ধন্যবাদও জানিয়েছেন।

বিধানসভা ভোটের আগে মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষিত ‘দুয়ারে সরকার’ কর্মসূচিকে সমালোচনা শোনা গিয়েছে নানা স্তরে। রাজ্যবাসীর বাড়ির দোরগোড়ায় সরকারি প্রকল্পগুলির সুবিধা পৌঁছে দিতে ডিসেম্বর মাস থেকে দু’মাস ব্যাপী এই প্রকল্পের সূচনা হয়েছে। সেদিন থেকেই বিভিন্ন শিবিরে চলছে কাজ। আর প্রথম থেকেই দারুণ পারফরম্যান্স ‘দুয়ারে সরকার’ কর্মসূচির আর সেই সাফল্য দেখে শিবিরের সংখ্যা আরও বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয় নবান্ন। দেড় মাসের তিনি জানান আগেই ২ লক্ষ মানুষ এই শিবিরে এসে সুবিধা পেয়েছেন। তাঁদের নানা সমস্যার সমাধান হয়েছে। তিনি টুইট জানান এই কথা ও।

এই মুহূর্তে যে সমস্যা নিয়ে বেশি ভুক্তভোগী রাজ্যের আদিবাসী, তফসিলি জাতি ও উপজাতিভুক্ত সম্প্রদায়ের মানুষজন, তা হল তাঁদের জন্য নির্দিষ্ট শংসাপত্র বা সার্টিফিকেট। সরকারি দপ্তরে ঘুরে ঘুরে, নানা প্রমাণ দাখিল করে শংসাপত্র জোগাড় করতে কেটে যাচ্ছিল দীর্ঘ সময়। মুখ্যমন্ত্রীর কাছে এই সমস্যার কথা পৌঁছনোমাত্রই তিনি বিষয়টিকে নিজে দেখেন। আধিকারিকদের নির্দেশ দেন যে পরিবারের যে কোনও একজনের এই সার্টিফিকেট থাকলেই যেন তাকে প্রমাণ হিসেবে গণ্য করা হয় এবং দ্রুত অন্য সদস্যদেরও এই সার্টিফিকেট দিয়ে দেওয়া হয়। এক মাসেরও কম সময়ে ১০ লক্ষ এসসি, এসটি, ওবিসির পেয়েছেন জাতিগত শংসাপত্র।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: