Nation

কাবুলের নাশকতার বিরুদ্ধে পাল্টা জবান দিলো তালিবান গোষ্ঠী

ধ্বংস করা হলো ইসলামিক স্টেটের সেল দাবি করলেন তালিবান

তিয়াসা মিত্র : গত রবিবার বিকেলে কাবুলের এক মসজিদতে বিস্ফোরণ হওয়াতে মৃত্যু হয়ে ৫ জনের আর এই ঘটনার ঠিক কিছুক্ষনের মধ্যে রবিবার সন্ধে নাগাদ তালিবান জেহাদিরা ইসলামিক স্টেট জঙ্গি গোষ্ঠীর একটি সেল ধ্বংস করে দিয়েছে বলে জানা যায়। জানা যায় রবিবার সন্ধেতে তালিবানের একটি অপারেশন চালায়ে এবং তাদের প্রধান মন্ত্রী বলেন আইএসের ঘাঁটি তছনচ করে তারা সফল হয়েছে।

তালিবান মুখপাত্র জাবিউল্লা মুজাহিদ টুইট করে বলেন , জঙ্গিদের ওই ঘাঁটি বা সেলটি কে তারা একেবারে গুড়িয়ে দিয়েছেন এবং সেই ঘাঁটিতে বসবাসকারী সমস্ত এজেন্টদের সেখানেই নিহত করে জেহাদি দল। গতকালে মসজিদে নাশকতার পিছনে আইএসের হাত ছিল বলে সন্দেহ। তালিবানের দের অভিযান চলাকালীন কাবুলে হয়ে যাওয়া এই বিস্ফোরণ এবং সেই বিস্ফোরণ এর আগুন প্রতক্ষ দর্শীরা স্বচক্ষে দেখতে পান। সোস্যাল মিডিয়ায় পোস্ট হওয়া ছবিতে ঘটনাস্থল থেকে বিস্ফোরণ, আগুন দেখা যাচ্ছে। কাবুলের বাসিন্দা তথা সরকারি কর্মী আবদুল্লা রহমান সাংবাদিকদের জানান, প্রচুর সংখ্যায় তালিবানের বিশেষ বাহিনীর সদস্যরা তাঁদের পড়শী এলাকার অন্ততঃ তিনটি বাড়িতে হামলা চালায়।

সূত্রে জানা যায় , তালিবান মুখপাত্র মুজাহিদের গত সপ্তাহে মারা যাওয়া মায়ের প্রার্থনাসভা চলছিল কাবুলের ঈদ গাহ মসজিদে। সেখানেই আচমকা বিস্ফোরণ হয়। এর ফলে মসজিদে থাকা সাধারণ লোকজন, তালিবান সদস্য মিলিয়ে ৫ জন মারা যায়, ১১ জন জখম হয়। তিনজনকে এ ব্যাপারে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানান এক সরকারি সাংস্কৃতিক কমিশন কর্তা।

প্রার্থনার পর সবাই যখন মসজিদ থেকে বেরোতে যায় তখন ঘটে যায় সেই নাশকতা। প্রসঙ্গত, তালিবান ও ইসলামিক স্টেটের আফগান শাখা আইএস খোরাসান-উভয়েই কট্টরপন্থী, সুন্নি ভাবধারায় বিশ্বাসী। তবে ধর্ম ও কৌশল সংক্রান্ত ইস্যুতে ভিন্নমত হওয়ার কারণে প্রায়ই তারা নিজেদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়ায়।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: