Nation

মায়ের দেহর সাথেই ৮ থেকে ৯ মাস বাস মেয়ের, শুধুই কি মানসিক ভারসাম্যহীনতা ?

৮৩ বছর বয়সী মৃত মায়ের সঙ্গে একই ছাদের তলায় ৮ থেকে ৯ মাস বাস মেয়ের

পল্লবী কুন্ডু : প্রথম ঘটনা, রবিনসন স্ট্রিটে (Robinson Street) দিদির দেহ মাস ছয়েক ধরে আগলে রেখেছিলেন পার্থ দে। দ্বিতীয় ঘটনা, বেহালার (Behala) ২৫ নম্বর জেমস লং (James Long Sarani) সরণির, মৃত মায়ের দেহ প্রায় ৩ বছর ধরে ফ্রিজারে লুকিয়ে রেখেছে ছেলে। একের পর এক সাইকো থ্রিলার উঠে এসেছে সকলের চোখের সামনে। আর এবার আবারো সামনে আসলো সেই শ্রেণীর ঘটনাই। তবে এবার বদলেছে ভরকেন্দ্র। বান্দ্রার (Bandra West) পশ্চিমে চুইম গ্রামের ঘটনা। ৮৩ বছর বয়সী মৃত মায়ের সঙ্গে একই ছাদের তলায় ৮ থেকে ৯ মাস বাস মেয়ের।

চলতি বছরের মার্চে মৃত্যু হয় ৮৩ বছর বয়সী ওই মহিলার। কিন্তু এই খবর কাউকে দেননি তার ৫৩ বছরের মেয়ে। মৃত মায়ের সঙ্গেই এক ছাদের তলায় তিনি কাটাচ্ছিলেন তিনি। সোমবার মুম্বই পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আটক করে মানসিক ভারসাম্যহীন মেয়েকে। বান্দ্রার আহমেদ বেকারির কাছাকাছি এক জায়গায় থাকতেন। লকডাউনের আগেই মায়ের মৃত্যু হয় বলে জানা গিয়েছে। ২০ নভেম্বর, আচমকাই বাড়ির আবর্জনা এবং ব্যক্তিগত বেশ কিছু জিনিস জানলা দিয়ে ছুঁড়ে ছুঁড়ে ফেলছিলেন ওই মহিলা। এরপর পাড়া-প্রতিবেশীরা খবর দেন পুলিশে। ঘটনাস্থলে এসে বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় মৃত মায়ের দেহ।

সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে প্রতিবেশীরা জানাচ্ছেন, মানসিক ভারসাম্য না থাকার জন্য ওই পরিবারের গ্রামে কোনও বন্ধু-বান্ধব নেই। এমনকী কোনও আত্মীয়স্বজনকেও কোনওদিন চোখে পড়েনি বলে জানান প্রতিবেশীরা। এক প্রতিবেশীর কথায়, ” ওই মহিলার সঙ্গে কথা বলাই যেত না। আমরা কেউই ওর সঙ্গে কথা বলতাম না। সেই কারণেই হয়তো লকডাউনের মধ্যে মায়ের মৃত্যুর খবর ও আমাদের কাউকে জানাতে পারেনি। আমরাই ওঁর মায়ের শ্রাদ্ধশান্তি করব। কারণ উনি খুব ভাল একজন মানুষ ছিলেন।” ইতিমধ্যেই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

কিন্তু প্রশ্ন উঠে আসছে যে, শুধুই কি মানসিক ভারসাম্যহীনতাই ? এই ঘটনা গুলি প্রথম হলেও একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটছে বারংবার। কোনোভাবে পূর্ববর্তী ঘটনাকেই অনুসরণ নয় তো ?

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: