Life Style

জানুন এ বছরে শনির সাড়েসাতীর হাল হাকিকৎ

শনিকে খুশি রাখতে মদ্যপান বা আমিষ জাতীয় জিনিসকে দূরে রাখবেন

লেখক: শ্রী রাজর্ষি

শনির সাড়ে সাতি দশাকে প্রায় সবাই ভয় পান। কারণ শনির সাড়ে সাতি জাতকের জীবনে নানা বিপর্যয় নিয়ে আসে। এই বছর ২৯ এপ্রিল নিজের অবস্থান পরিবর্তন করবে শনি। তার ফলে কোন কোন রাশিতে সাড়ে সাতি দশা শুরু হতে চলেছে তা জেনে নিন এখানে।

জ্যোতিষশাস্ত্র অনসারে জাতকের ভাগ্য নির্ধারণ করতে নয়টি গ্রহ ও ১২টি রাশির অবস্থান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের জীবনে এদের অবস্থান বিশেষ ভাবে প্রভাব বিস্তার করে। এই গ্রহগুলি নির্দিষ্ট সময় পর পর এক রাশি থেকে অন্য রাশিতে গমন করে। যেহেতু আমরা সবাই কোনও না কোনও রাশির অধীনে আছি, তাই নবগ্রহের একটি রাশি থেকে অন্য রাশিতে গমন আমাদের জীবনে বিশেষ ভাবে প্রভাব ফেলে।

গ্রহের রাশি পরিবর্তন কারোর কারোর জন্য শুভ এবং কারোর করোর জন্য অশুভ ফল নিয়ে আসে। ২০২২-এও অনেকগুলি গ্রহ রাশি পরিবর্তন করবে। জ্যোতিষ অনুসারে শনিকে কর্মফল দাতা বলে মনে করা হয়। অর্থাত্‍ আপনি যেমন কাজ করবেন, শনির অবস্থান আপনার উপর তেমন প্রভাব বিস্তার করবে। ভালো কাজ করলে শনির দৃষ্টিতে শুভ ফল পাওয়া যায় আবার খারাপ কাজ করলে শনির রোষে জীবন ছারখার হয়ে যেতে পারে।

শনি যখন অবস্থান পরিবর্তন করে, তখন কোনও কোনও রাশিতে শনির সাড়ে সাতি এবং কোনও কোনও রাশিতে শনির ঢাইয়া শুরু হয়। দেখে নিন ২০২২ এ শনির অবস্থান পরিবর্তনের ফলে কোন রাশিতে কেমন প্রভাব পড়তে চলেছে।

বর্তমানে শনি মকর রাশিতে অবস্থান করছে। সেই কারণে মকরে চলছে শনির সাড়ে সাতির দ্বিতীয় পর্যায়। সাড়ে সাতির প্রথম পর্যায় চলছে কুম্ভ রাশিতে এবং তৃতীয় পর্যায় চলছে ধনু রাশিতে। এই বছর ২৯ এপ্রিল মকর রাশি ছেড়ে কুম্ভে প্রবেশ করবে শনি।

শনির সাড়ে সাতি দশার তিনটি পর্যায় আছে। প্রতিটি পর্যায় আড়াই বছর করে চলে। এই ভাবে সাড়ে সাত বছর ধরে চলে শনির সাড়েসাতি দশা।

শনি সাড়েসাতী : উদয় পর্যায়
এটাই হচ্ছে শনির সাড়েসাতী প্রারম্ভের সময়কাল। এই সময়ের মধ্যে শনি চন্দ্র থেকে ১২নং ঘরে গমন করবে। সাধারণভাবে লুকানো শত্রু, উদ্দেশ্যহীন ভ্রমণ, বিরোধ ও দারিদ্র্য দ্বারা আর্থিক ক্ষতি প্রভৃতি সমস্যা নির্দেশ করে এই সময়। এই সময়কালে, আপনি আপনার লুকানো শত্রুদের দ্বারা সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন। আপনার সহকর্মীদের সাথে সম্পর্ক ভাল থাকবে না এবং তারা আপনার কাজের পরিবেশে সমস্যা তৈরি করতে পারে। এছাড়াও আপনি আপনার গার্হস্থ্য জীবনেও চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে পারেন। যাতে আপনি চাপ ও চাপা উত্তেজনা অনুভব করবেন। আপনাকে নিয়মিত খরচ নিয়ন্ত্রন করতে হবে, অন্যথায় এটি বড় আর্থিক সমস্যা ধারণ করতে পারে। দূরে ভ্রমনের জন্য সময়টা ফলপ্রসূ নয়। শনির প্রকৃতি বিলম্ব এবং নিরাশা হলেও, ধৈর্য ধরবেন আপনি ফলাফল পাবেন।সময়টাকে জানার কাজে লাগান এবং দক্ষভাবে কর্ম করে যান, সবকিছুই ঠিকঠাক জায়গায় থাকবে। ব্যবসার বিষয়ে এই সময় কোন ঝুঁকি নেবেন না।

শনি সাড়েসাতী: শিখর পর্যায়
এই সময় শনির সাড়েসাতী শিখরে রয়েছে। সাধারনত এই সময় শনির প্রকোপটা বেশ কঠিন হবে। শনি চন্দ্রের ওপর রয়েছে বলে স্বাস্থ্য সমস্যা, চরিত্র হত্যা, সম্পর্ক নষ্ট,মানসিক সমস্যা প্রভৃতি দুঃখজনিত ব্যাপার ঘটতে পারে। সাফল্যর ক্ষেত্রে সময়টা কঠিন হতে পারে। পরিশ্রমের সঠিক মূল্য আপনি পাবেন না। আপনার সংবিধান এবং অনাক্রম্যতা শক্তিশালী হবে না। যেহেতু কুণ্ডলীর প্রথম ঘর হচ্ছে স্বাস্থ্যের ঘর, তাই স্বাস্থ্যের প্রতি নিয়মিত যত্ন নিন, তা নাহলে দুরারোগ্যের শিকার হতে পারেন। আপনি বিষণ্নতা, অজানা ভয় বা বিতৃষ্ণাতে ভুগতে পারেন। চিন্তা, কর্ম, এবং সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে আপনার স্বচ্ছতার অভাব দেখা দেবে। আপনি আধ্যাত্মিকত্যে আকৃষ্ট হয়ে পড়বেন। স্বীকৃত বুনিয়াদির মূলসূত্র বিসর্জিত হবে।

শনি সাড়েসাতী: অস্ত পর্যায়
এটা শনির সাড়েসাতীর ‘অস্ত’ যাবার সময়।শনি চন্দ্র থেকে ২নং ঘরে যাওয়ায় আর্থিক এবং গার্হস্থ্যে অসুবিধে দেখা দেবে। সাড়েসাতীর দুটো পর্যায়ের পর আপনি কিছুটা শান্তি অনুভব করবেন। যদিও ভুল বোঝাবুঝি এবং আর্থিক চাপ এই সময়ের মধ্যে দেখা যাবে। খরচ উচ্চ সম্পন্ন হলেও আপনাকে নিয়মিত নিয়ন্ত্রন চালিয়ে যেতে হবে। আর্থিক লোকসান ও চুরির ভয়ের সম্ভাবনা আছে। হতাশাপূর্ণ চিন্তা হলেও আপনাকে যেকোনো লেনদেন এর ব্যাপারে উদ্যমী থাকতে হবে। আপনাকে পরিবার বা ব্যাক্তিগত জীবনে মনোনিবেশ করতে হবে অন্যথায় আপনাকে এক্ষেত্রেও সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। ছাত্রদের ক্ষেত্রে সময়টা একটু প্রভাবিত হলেও বিদ্যবান স্তরটা ঠিক রাখতে হবে। ফলাফলের দিকটা সবসময় একটু ধীর বা বিলম্ব হতে পারে। এই সময়টাতে বিপদের আশঙ্কা রয়েছে বলে গাড়ী চালানোর সময় সচেতনতা বজায় রাখবেন। শনিকে খুশি রাখতে মদ্যপান বা আমিষ জাতীয় জিনিসকে দূরে রাখবেন। আপনি বুদ্ধির জোরে গার্হস্থ বা আর্থিক বিষয়টাতে উতরে যাবেন।

শনি আগামী ২৯ এপ্রিল মকর ছেড়ে কুম্ভে প্রবেশ করার সঙ্গে সঙ্গে কুম্ভ রাশিতে সাড়ে সাতির দ্বিতীয় পর্যায় শুরু হবে। সেই কারণে এই সময় কুম্ভের জাতকদের নানা সমস্যার মধ্যে দিয়ে যেতে হবে। এই সময় কুম্ভের জাতকরা ভালো কাজের দিকে মন দিন। সমাজসেবামূলক কাজে নিজেকে ব্যস্ত রাখুন।

শনির রাশি পরিবর্তনের ফলে মকরে শুরু হবে সাড়ে সাতির তৃতীয় পর্যায়। পাশাপাশি এই সময় ধনু রাশির জাতকরা শনির অর্থ শতক থেকে মুক্তি পাবেন। বলা হয়, সাড়ে সাতি সম্পূর্ণ ভাবে ছেড়ে যাওয়ার সময় শনি জাতককে কিছু দিয়ে যান। তাই ধনুর জাতকরা এই সময় কোনও দিক দিয়ে লাভবান হতে পারেন।

আড়াই বছর ধরে চলা শনির সাড়ে সাতির এক একটি পর্যায়কে বলা হয় ঢাইয়া। ২৯ এপ্রিল শনি রাশি পরিবর্তন করলে কর্কট ও বৃশ্চিক রাশিতে শনির ঢাইয়া শুরু হবে এবং ঢাইয়া থেকে মুক্তি পাবেন মিথুন ও তুলা রাশির জাতকরা।

প্রতিকার:
ভোজন প্রতিকার:- কাক, কালো জীবজন্তু, মোষ, যোগীপুরুষকে ভোজন করালে শনির দোষ কাটে।

পূজা প্রতিকার:- কালো অগুরুর ধূপ জ্বালিয়ে শনি মন্দিরে পরপর আটটি শনিবার পূজা দিলে শনির দোষ কাটে।

ধাতু প্রতিকার:- সীসা ধারণ করলে শনিদেবের কোপ থেকে রেহাই পাওয়া যায়।

রত্ন প্রতিকার:- নীলা বা এমিথিষ্ট রত্ন ধারণ করলে শনির দোষ কাটে।

এ ছাড়াও কয়েকটি কার্যকরী প্রতিকার:-

১) শনিবার নিরামিষ খান।
২) হনুমান চাল্লিশা, দূর্গা চাল্লিশা, শিব চাল্লিশা পঠ করুন।
৩) বাড়ির বয়স্ক ব্যক্তি, পিতা, মাতাকে প্রণাম করে কাজে শুরু করুন।
৪) প্রতি শনিবার শিবের পূজো করা।

প্রণাম মন্ত্র:-

নীলাঞ্জন চয় প্রখ্যাং রবিসূত মহাগ্রহম।
ছায়ায়া গর্ভসম্ভুতঃ বন্দে ভক্ত্যা শনৈশ্চয়ম।।

Show More

OpinionTimes

Bangla news online portal.

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: