Life Style

রোজের ব্যস্ততার মাঝেও নিজেকে সুস্থ রাখতে যোগাসন অতিআবশ্যক

আপনি যদি নিয়মিত প্রতিদিন যোগাসন করেন তবে আপনার মস্তিষ্কের নির্দিষ্ট কিছু কর্মকান্ড নিয়ন্ত্রিত হয়, যা আপনাকে ভেতর থেকে সুস্থ থাকতে সাহায্য করে

পল্লবী কুন্ডু : আপনি কি জানেন নিয়মিত যোগাসন আপনার শরীরের জন্য কতটা উপকারী ? আপনি যদি নিয়মিত প্রতিদিন যোগাসন (Yoga)করেন তবে আপনার মস্তিষ্কের নির্দিষ্ট কিছু কর্মকান্ড নিয়ন্ত্রিত হয়। নিয়মিত যোগাসন করলে শরীরে মেসেঞ্জার মলিকিউল এর মাত্রা বাড়িয়ে দেয়, এর ফলেই মস্তিষ্কের কর্মকান্ড নিয়ন্ত্রিত হয়। সপ্তাহে একবার পূর্ণাঙ্গ যোগাসনের ক্লাস করলেও ধারাবাহিকভাবে এই রাসায়নিকের পরিমান বর্ধিত মাত্রায় থাকে।

এগুলি কথার কথা নয়, একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে, এটি মানসিক অবসাদের লক্ষণগুলিকে মোকাবিলা করতে সাহায্য করে। ‘Journal of Alternative and Complementary Medicine’ এ প্রকাশিত হয়েছে এই গবেষণা। এই গবেষণার বিষয়বস্তু হিসেবে ছিল, ৩০ জন মানসিক অবসাদ বা ডিপ্রেশনের রুগী। এদের ২ টি দলে ভাগ করা হয়। গবেষকের দল, এই ২ দলের রুগীকে দিয়ে নির্দিষ্ট প্রক্রিয়ায় শ্বাসপ্রশ্বাস নেওয়ান এবং আয়েঙ্গার যোগ করান। ২ দলের মধ্যে তফাত্‍ করা হয় যে, ৯০ মিনিটের কটি যোগাসনের ক্লাস করছেন তাঁরা, অর্থাত্‍ একদল কম ক্লাস করেন, একদল বেশি।

এটি ৩ মাস ধরে একটি দলকে ১ সপ্তাহে তিনটি করে ক্লাস এবং অন্য দলকে ২ টি করে ক্লাস করানো হয়। প্রথম ক্লাসের আগে এবং শেষ ক্লাসের পরে প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীর ব্রেনের এমআরআই স্ক্যান করা হয়। পাশাপাশি তাঁদের মানসিক অবসাদের তীব্রতা মাপা হয়। গবেষণায় দেখা যায়, ২ দলের ক্ষেত্রেই ৩ মাস যোগাভ্যাসের পরে মানসিক অবসাদের তীব্রতা হ্রাস পেয়েছে। এমআরআই স্ক্যানে ধরা পড়ে ৩ মাস ধরে যোগব্যায়াম করার ফলে ব্রেনের মেসেঞ্জার মলিকিউল এর মাত্রা বৃদ্ধি পায়।

এই গবেষণার মাধ্যমে আরও জানা যায়, শেষ যোগাসন ক্লাসের চারদিন পরেও GABA এর মাত্রায় বৃদ্ধির প্রমাণ পাওয়া যায়, তবে ৮ দিন পর আর তা দেখা যায় না। এই গবেষণাপত্রের সহ লেখক ক্রিস স্ট্রিটারের বলেছেন, গবেষণায় দেখা যাচ্ছে GABA এরমাত্রায় বৃদ্ধির ব্যাপারটা সময়সীমা নির্ভর, যেটি ওষুধ ভিত্তিক চিকিত্‍সার ক্ষেত্রেও হয়ে থাকে। সপ্তাহে একটি যোগাসনের সেশন করলেও GABA এর মাত্রায় বৃদ্ধির হার বজায় থাকবে।

তাহলে এই গবেষণার রিপোর্ট দ্বারা আপনারা সকলেই বুঝতে পারলেন যে, যোগাসন মানব দেহের ক্ষেত্রে কতটা কার্যকরী। তাই দিনে অন্তত একবার হলেও যোগাসন করা অতি আবশ্যক।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button
%d bloggers like this: